চন্দনাইশ কাঞ্চনাবাদে রক্তপাত চাই না

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৫ এপ্রিল , ২০১৬ সময় ১১:৫৬ অপরাহ্ণ

চন্দনাইশ মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ
চন্দনাইশ উপজেলার কাঞ্চনাবাদ মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের উদ্যোগে কাঞ্চনাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী নজরুল, বর্তমান চেয়ারম্যান শুক্কুর, আবু ছালেক ও কালামের সমর্থনে তৃণমূলের বিভিন্ন সংগঠনের নেতা ও কর্মীদের সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। আজ ১৫ এপ্রিল বিকাল ৬ টায় বিজিসি ট্রাস এর সম্মুখে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়কে এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ কাঞ্চনাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চন্দনাইশ মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন, যুবলীগের আহ্বায়ক মো. আবু ছৈয়দের সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ কাঞ্চনাবাদ ইউনিয়ন শাখার সিরাজুল ইসলাম, শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদের সভাপতি মো. আইয়ুব, সাধারণ সম্পাদক মো. হোসেন, আবাহনী ক্রীড়া চক্রের সভাপতি নোমান, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ, খোরশেদ, আলী আহমদ, ফরিদ, বোরহান, রায়হান, আমজাদ, ওসমান, জয়নাল, আবু বক্কর, রশিদ, নিশাদ, সেলিম উদ্দিন, আবদুর রহিম, আজিজুল ইসলাম, ওসমান, রহমান, লিটন, শুক্কুর, বদি, এমরান, শ্রমিকলীগের আবদুর রহমান, শাহছূফি আদর্শ সংঘের বাবুল, তরুণ সংঘের নবাব, কলিমউল্লাহ, মোহাম্মদ আনিস, মো. আবুল হোসেন, মো. বাদশা, রিপন, মোহাম্মদ ইসহাক মেম্বার, ইউনিয়ন আ’লীগ সদস্য আবদুর রাজ্জাক, আবু ছৈয়দ, শাহ আলম, সিরাজ মিয়া, আবদুল হাকিম, আবদুল মান্নান, আবদুল আলীম, ইয়াং জেনারেশন ক্লাবের আনোয়ার, আলম, মোক্তার, রুবেল প্রমুখ। সভায় প্রধান অতিথি বলেন আমরা রক্তপাত চায় না, আমরা শান্তি চায়। যদি অন্য কোন কিছুর ইংগিত পাই তাহলে দাবানলের মত জ্বলে উঠবো, তখন কেউ রুখতে পারবে না। প্রধান অতিথি আরো বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা তৃণমূল পর্যায়ে যারা সংগঠনকে মজবুত করার জন্য কাজ করে গেছেন এবং এখনো যারা সংগঠনকে নিয়েই ভাবছেন, তাদেরকে আগামী নির্বাচনে প্রাধান্য দেয়ার যে ঘোষণা দিয়েছে, সেই অনুযায়ী যদি প্রার্থী না দেয়া হয়, তাহলে তিনি নিজেই তা তদারকী করার ঘোষণা দেন। আমরা কাঞ্চনাবাদ বাসীও সেই ধরনের ঘোষণাকে স্বাগত জানাই। সেই নিরিখে আমাদের আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কাঞ্চনাবাদ ইউনিয়নে যাতে আত্মীয়করন না হয় সেই ব্যাপারে সকলকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে, অন্যথায় সংগঠনের ত্যাগী নেতারা সংগঠন থেকে অনেক দূরে সরে যাবে, তাহলে বিরোধী দল সেই অবস্থা লুফে নিয়ে আমাদের ধ্বংস করে দেয়ার চক্রান্তে লিপ্ত হবে। আমরা সেই সুযোগ কাহাকেও না দেয়ার জন্য আ’লীগের একজন পরীক্ষিত, ত্যাগী, সংগঠনের সাথে জড়িত, মানুষের সুখ দু:খে যাকে পাবে সেই ধরনের একজন ব্যক্তিকে মনোনীত করার জন্য আ’লীগ তৃণমূল নেতা-কর্মীদের পক্ষ থেকে হাইকমাণ্ডের প্রতি আহ্বান জানাই। অন্যথায় যে কোন উদ্বুত পরিস্থিতির জন্য যারা আত্মীয়করণ করবে তারাই দায়ী থাকবে।
সংবাদ দাতা


আরোও সংবাদ