চট্টগ্রাম-১৩ আওয়ামীলীগ-বিএনপিতে প্রস্তুতি

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৫ আগস্ট , ২০১৭ সময় ১১:৪৯ অপরাহ্ণ

ইমরান এমি.আনোয়ারা:
আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে জমে উঠছে নির্বাচনী মাঠ। নির্বাচনের সময় আরো বছর খানিক থাকলে এখন থেকে প্রস্তুতি নিচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। দলের নিজের কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে জানান দিতে চাচ্ছেন মাঠ পর্যায়ে নিজের অবস্থান।
জানা যায়, আনোয়ারা-কর্ণফুলী উপজেলা নিয়ে চট্টগ্রাম ১৩ সংসদীয় আসন, এ আসনে আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের ঘাটি ও কর্ণফুলী উপজেলাকে বলা হয় বিএনপির ঘাটি। বিগত নির্বাচনগুলো আওয়ামীলীগ প্রার্থী আনোয়ারায় এগিয়ে থাকলেও কর্ণফুলী উপজেলার ভোটে বিএনপির প্রার্থী বিজয়ী হয়ে আসছে। তার ব্যাতিক্রম হয় নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে, সে বার আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থী আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু বিপুল ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়। পরবর্তী আখতারুজ্জামান বাবু মৃত্যুবরণ করলে উপ-নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নেওয়ায় বাবুপুত্র সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরবর্তী ৫ জানুয়ারির বিএনপিবিহীন নির্বাচনে দ্বিতীয় বারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে ভূমি মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসাবে মন্ত্রী সভায় স্থান পেয়ে আনোয়ারা-কর্ণফুলী উপজেলাবাসী প্রথমবারের মতো মন্ত্রীর স্বাদ পায় । মন্ত্রী হয়ে আনোয়ারা-কর্ণফুলী উপজেলায় ব্যাপক উন্নয়ন করেন মন্ত্রী জাবেদ, এছাড়াও কর্ণফুলীবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি কর্ণফুলীকে উপজেলা ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। তাই কর্ণফুলী উপজেলায় বিএনপির ভোট অনেকটা কমে যাবে বলে ধারণা রাজনৈতিক মহলের।
আওয়ামীলীগ থেকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারো দলীয় মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচন করবেন বর্তমান সাংসদ সরকারের ভূমিপ্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ। তার জন্য প্রতি শুক্রবার আনোয়ারা-কর্ণফুলী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে জুমার নামাজ আদায় করছেন। স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন রাজনীতির ধারক সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স ইন্ড্রাষ্ট্রির সর্বকনিষ্ঠ প্রেসিডেন্ট হিসাবেও নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।
এছাড়াও এ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন চাইতে পারেন আওয়ামীলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য, রাষ্ট্রদূত আতাউর রহমান খান কায়সারের কন্যা কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি ওয়াসিকা আয়েশা খান। এ লক্ষে তিনি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে গিয়ে চিকিৎসা ক্যাম্প, বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করছেন। ওয়াসিকা আয়েশা খান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য ও ইন্টার পার্লামেন্টারী ইউনিয়নের ব্যুরো অফ ওমেন পার্লামেন্টারিয়ানসের সদস্য হিসাবে আর্ন্তজাতিকভাবে কাজ করছেন।
আনোয়ারা-কর্ণফুলী সংসদীয় আসনের বিএনপির দলীয় মনোনয়ন চাইবে সাবেক সংসদ সদস্য সরোয়ার জামাল নিজাম, মোস্তাফিজুর রহমান। দ্বি-ধারায় বিভক্ত আনোয়ারা-কর্ণফুলী বিএনপিতে চলছে হিসাবের লড়াই, বিগত কয়েকবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে দলের তৃণমূল নেতাদের দূরে রেখে কাজ করার অভিযোগ রয়েছে সরোয়ার জামাল নিজামের। এছাড়াও নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর দলীয় নেতাদের কোন খবর রাখেনি বলেও অভিযোগ দলের প্রবীণ ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের। এছাড়া জনপ্রিয় বিএনপি নেতা জামাল উদ্দীন অপহরণ ইস্যুতে নাজুক অবস্থায় আছেন তিনি। আগামী নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেলেও নির্বাচনে জয়ী হতে প্রচুর কষ্ট হবে, কারণ এতদিন এ আসনে তার সাথে প্রতিদ্বন্ধীতা করার মতো শক্ত কোন প্রার্থী না থাকলেও এবার মাঠে নেমেছেন নিজামবিরোধী হিসাবে পরিচিত নেতারা। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এডভোকেট কবীর চৌধুরী ও দক্ষিণ জেলা বিএনপির সহসভাপতি কাস্টম জালাল উদ্দীন আহমদ গ্রুপের সমর্থন নিয়ে বিএনপির মনোনয়ন চাইবেন তরুণ বিএনপি নেতা মোস্তাফিজুর রহমান। এ লক্ষে তৃণমূল পর্যায়ে ছাত্রদল, যুবদল, বিএনপি ও দলের প্রবীণ ও ত্যাগী নেতাদের একতাবদ্ধ করছেন তিনি। তৃণমূলের নেতাদের জন্য দশ হাজার সদস্য ফরম নিয়ে মাঠে নামছেন তিনি। তাকে সমর্থন জানাচ্ছেন প্রবীণ আইনজীবি ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এডভোকেট কবীর চৌধুরী ও কাস্টম জালাল।
এদিকে আনোয়ারা-কর্ণফুলী সংসদীয় আসনে বর্তমান বিরোধীদল জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসাবে আলোচনায় আছেন কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও চট্টগ্রাম মহানগর জাতীয় পার্টির সিনিয়র সহসভাপতি তপন চক্রবর্তী। এ লক্ষে দ্বিভাগে বিভক্ত জাতীয় পার্টিকে এক করে কাজ করছেন তিনি। ধর্মীয় সামাজিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তৃণমূলের নেতাদের কাছে গিয়ে আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। বিগত নির্বাচনে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেছিলেন তিনি। নবগঠিত সম্মিলিত জাতীয় জোটের ব্যানারে নির্বাচন করলে তাকে সমর্থন জানাবেন জোটের শরীক বাংলাদেশ ইসলামি ফ্রন্ট।
এব্যাপারে ভূমিপ্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চেšধুরী জাবেদ এম.পি দেশের বাইরে থাকায় মতামত নেওয় যায়নি।
এব্যাপাওে ভূমিপ্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চেšধুরী জাবেদ এম.পির একান্ত সচিব রিদোয়ানুল করিম চেšধুরী সায়েম বলেন আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীকে আবারো বিপুল ভোটে জয়ী করতে আমরা মাঠ পর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছি। ক্ষমতাসিন দলে কিছু ভূল বোঝাবুঝি থাকবে নেতাকর্মীদের মাঝে, তবে আমরা সবাই আনোয়ারায় সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদের প্রয়োজনে এক ও অভিন্ন।
এব্যাপারে আওয়ামীলীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী ওয়াসিকা আয়েশা খানম বলেন, মনোনয়ন চাওয়া রাজনৈতিক কর্মীদের অধিকার। আগামী নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে আমার প্রয়াত পিতা আতাউর রহমান খান কায়সার আনোয়ারা-কর্ণফুলীবাসীকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেছেন তা বাস্তবায়বন করতে কাজ করবো। নারীর ক্ষমতায়নের অগ্রদূত আমার অভিভাবক আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা মনোনয়ন দিবেন।
এব্যাপারে বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য সরোয়ার জামাল নিজামের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও ফোন বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেওয়া যায়নি।
এব্যাপারে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যশী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ম্যাডাম (বেগম খালেদা জিয়া) দলের ত্যাগী ও তরুণদের অগ্রাধিকার দিয়ে দলকে সংগঠিত করছেন সারাদেশে। আগামী নির্বাচনেও দলের ত্যাগী ও তরুণদের মনোনয়ন দিবেন। তাই আমি আশা করি আমি মনোনযন পেলে বিএনপির হারানো আসন ম্যাডামকে পুনরায় উপহার দিতে পারবো।
এব্যাপারে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যমী তপন চক্রবর্তী জানান, আমি নগরের রাজনীতি করলেও আমার আনোয়ারা-কর্ণফুলীবাসীর কাছেই পাই প্রকৃত সুখ। আমার দলের চেয়ারম্যান আমাকে আনোয়ারা আসনে কাজ করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়া কেন্দ্র থেকে ঘোষিত সম্ভাব্য ১৫০ প্রার্থীর মধ্যে আনোযারা আসনে আমার নাম আছে। তাই আমি নিশ্চিত দলের মনোনযন আমি পাবো।

 


আরোও সংবাদ