চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে তুমুল বিতর্ক

প্রকাশ:| শুক্রবার, ৬ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ১০:২৯ অপরাহ্ণ

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী পাঁচ দেশের ভেটো নিয়ে তুমুল বিতর্ক হয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে। স্থায়ী সদস্যের অনুগত কোনো দেশ মানবতাবিরোধী অপরাধ করলে জাতিসংঘ যদি সে দেশটির ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত নেয় তাহলে স্থায়ী সদস্যরা সে সিদ্ধান্তে ভেটো দেয়। ফলে পার পেয়ে যায় সেই দেশটি। এ কেমন নিয়ম, অপরাধীর পক্ষে নিয়ে জাতিসংঘে ভেটো।

বিশ্ববিদ্যালয়ে এনআইএলএসের আইন বিষয়ক জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিতার্কিকদের বক্তব্যে উঠে এসেছে এসব তথ্য। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ অডিটোরিয়ামে শুক্রবার (৬ অক্টোবর) সকাল ৯টায় প্রথম দিনের বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু হয়।

২০টি দলের অংশগ্রহণে এই বিতর্ক প্রতিযোগিতায় দেশের নামকরা বিতার্কিক ও সংগঠকরা বিচারক হিসেবে রয়েছেন।

ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতার্কিক দেবা ফারাহ। তার দলের বিষয় ছিল রোহিঙ্গা ইস্যু। তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ভেটো রোধ করা উচিত। কারণ কোনো দেশ মানবতাবিরোধী অপরাধ করলেও স্থায়ী পাঁচ দেশের যে কারোর অনুগত হলে সে দেশের পক্ষে ভেটো পড়ে। ফলে পার পেয়ে আরও মানবতাবিরোধী অপরাদের সঙ্গে জড়িযে পড়ে দেশটি।’

‘তাই এটি রোধ করে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা জাতিসংঘের মহাসচিবের রাখা উচিত।’ বলেন বিতার্কিক দেবা ফারাহ

প্রতিযোগিতায় বিচারক হিসেবে রয়েছেন চুয়েটের করতালির সম্পাদক ডেপুটি চিফ এডজুডিকেটর মাহমুদুল হাসান প্রতীক, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি ডেপুটি চিফ এডজুডিকেটর তানভির আহমেদ সিদ্দিক, ওই প্রতিষ্ঠানের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শুভাশীষ চৌধুরী, সিইউডিএসের সাবেক সভাপতি নাজমুল হাসান জুন্নুন ও ডেপুটি চিফ এডজুডিকেটর কাজী আরাফাত। শনিবারও চলবে এই বিতর্ক প্রতিযোগিতা।

\


আরোও সংবাদ