চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মী সম্মেলন দুষ্কৃতিকারীদের ছাত্রলীগে প্রয়োজন নেই

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১০ এপ্রিল , ২০১৪ সময় ১১:৪৭ অপরাহ্ণ

চবি প্রতিনিধি
কাউকে লাঞ্চিত করা,পেশি শক্তি দেখানো,চাঁদাবাজি,টেন্ডারবাজি ও সাবেক নেতাকে জুতার মালা দেওয়ার মত ন্যাক্কারজনক ঘটনার মধ্যে দিয়ে ভাল ছাত্রনেতা হওয়া যায় না। আর যারা এসব কর্মকান্ড করে তাদেরকে ছাত্রলীগে প্রয়োজন নেই। বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সমাজবিজ্ঞান অডিটরিয়ামে ছাত্রলীগের কর্মী সম্মেলনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন,দেখা যায় কেন্দ্রীয় কমিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের কমিটি দিলে কিছু নেতা বিদ্রোহ করে। শুধু বিদ্রোহ নয় তারা কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় আওয়ামী লীগনেতার বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্থানে সভা সমাবেশ করে। বিদ্রোহীদের কাছে কেন্ত্রীয় ছাত্রলীগ নেতারা মাথা নত করবে না। বিদ্রোহীদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে। প্রয়োজনে তাদেরকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হবে। ছাত্রলীগ কর্মীর সংখ্যা দরকার হলে কম হোক তবুও ভালো । মেধাবীরা যাতে রাজনীতিতে আসে সে দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

ছাত্রলীগকে এদেশের ছাত্ররাজনীতির মডেল হতে হবে। গুটি কয়েক ছাত্রলীগ নামধারী ছাত্রের অপকর্মের দায় বাংলাদেম ছাত্রলীগ নেবেনা। যারা অপকর্ম করছে তাদের সনাক্ত করে সংগঠন থকে বহিষ্কার করা হবে। প্রয়োজনের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে তুলে দেওয়া হবে। মেধাবী, যোগ্য ও অভিযোগহীন ছাত্রদের হাতে চবি ছাত্রীলগের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হবে। চাঁদাবাজ ছিনতাইকারীদের এ সংগঠনের ঠাঁই হবেনা।

তিনি আরো বলেন,ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ত্যাগ স্বীকার করতে হবে। যদি নিজেদের মধ্যে অন্ত:কোন্দল থাকে তবে স্বাধীনতা বিরোধীরা সুযোগ নিবে। যা ছাত্রলীগের জন্য মঙ্গলকর কিছু বয়ে আনবে না। ছাত্রলীগে গ্রুপিং বলতে কিছু নেই। তিনি হুশিয়ারি করে বলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে আগামীতে যদি কেউ গ্রুপিং এর মাধ্যমে অন্ত:কোন্দলের চেষ্টা করে তবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আব্দুল কাদের মহিউদ্দিন মাহী। চবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেদ চৌধুরীর পরিচালনায় সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন সুমন, মহসিন করিম রিয়েল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদ হাসানুজ্জ¥ান তারেক, সাংগঠনিক সম্পাদক শওকত ইসলাম , তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এরশাদুর রহমানসহ প্রমুখ।