চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি মহাসড়কের মুহুরীহাটে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ ,পুলিশের মুহুর্মুহু গুলি বর্ষণ

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ০৭:১৫ অপরাহ্ণ

এতে অন্তত ১৫ জন আহত ৪জন আটক হয়েছে
হাট মুচট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি মহাসড়কের মুহুরীহাটে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ বাধে। হাটহাজারীর মির্জাপুর ইউনিয়নে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ হয়। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায় হরতালের ৩য় দিন বিকেলে বিএনপি একটি মিছিল বের করে মিছিলটি সরকারহাট বাজারে গেলে সেখানে এক ছাত্রলীগ কর্মী ইট চুড়তে উদ্দত হলে পুলিশ তাকে ধাওয়া করে পিছু নিলে ঘটনার সূত্রপাত।
এসময় বিএনপির কর্মীদের একাংশ ঐ ছাত্রলীগ কর্মীকে নিজেদের কর্মী মনে করে পুলিশের উপর হামলা চালানোর চেষ্টা করলে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের হস্থক্ষেপে তা বড় আকার ধারন করেনি। এর কিছু সময় পর ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি জাকের হোসেনকে আটক করে সরকারহাট বাজার থেকে আটক করে। এরপর বিএনপি-জামাত জরো হয়ে মুহুরীহাট বটতলে এসে রাস্তায় অবরোধ তৈরী করে এবং জাকির হোসেনকে ছেড়ে দিতে বলে। শুরু হয় সংঘর্ষ ,সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে পুলিশ পিছু হটে মুহুরীহাটবাজারে এসে মুহুর্মুহু গুলি ও কাদানো গ্যাস ছুড়তে থাকলে এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে । এতে রাস্তার আশপাশের বাড়ি ঘরে স্পিন্টার আছরে পড়ায় সবায় দরজা জানলা বন্ধ করে ঘরে আশ্রয় নেয়।

এখন পরিস্থিতি শান্ত,মুহুরীহাট বাজারে বিপুল সংখ্যক পুলিশ অবস্থান নিয়েছে। এতে অন্তত ১৫ জন আহত ৪জন আটক হয়েছে বলে বিএনপি দাবী করেছে ।
সংঘর্ষের খবর উপজেলার সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন স্থানে পিকেটাররা সড়ক অবরোধ করে দুই পার্বত্য মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে বেশকিছু গাড়ীতে ভাংচুর করে। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
থানা থেকে প্রায় ৫ প্লাটুন অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনারস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এতে পুলিশ প্রায় ৩০/৩৫ রাউন্ড গুলি,রাবার বুলেট ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করেছে বলে হাটহাজারী থানার ওসি এ.কে.এম.লিয়াকত আলী জানান।


আরোও সংবাদ