চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে প্রবেশে পরিচয় পত্র প্রদর্শন বাধ্যতামূলক

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৩ এপ্রিল , ২০১৪ সময় ১০:৩৭ অপরাহ্ণ

অবৈধ লোকের আনাগোনা এড়াতে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে প্রবেশে পরিচয় পত্র প্রদর্শন বাধ্যতামূলক করেছে কর্তৃপক্ষ।

পরিচয় পত্র প্রদর্শন করে দপ্তরে প্রবেশ করতে আদেশ জারি করা হয়েছে। বুধবার এ আদেশ জারি করেন চট্টগ্রাম কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার মো.ফজলুল হক।

আদেশে বলা হয়, ‘চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের সার্বিক নিরাপত্তা ও জনস্বার্থ বিবেচনা করে সব স্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দপ্তর থেকে ইস্যুকৃত পরিচয় পত্র প্রদর্শন করে দপ্তরে প্রবেশ করবেন এবং সহজে দৃষ্টি গোচর হয় এমনভাবে প্রদর্শন করবেন।‘

চট্টগ্রাম কাস্টমসের সব দপ্তরে এ আদেশ পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

আগামী ৭ এপ্রিল থেকে সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং ১০ এপ্রিল থেকে আমদানি-রপ্তানিকারক, সিএন্ডএফ কর্মকর্তা-কর্মচারী ও অন্যান্যদের এ আদেশ মেনে চলতে হবে।

যুগ্ম কমিশনার ফজলুল হক বলেন,‘যত্রতত্রভাবে লোকজন আসার সুযোগ থাকলে একজনের ফাইল অন্যজনে নিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। পরিচয়পত্র থাকলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা বা কর্মচারী কিনা তা সহজে চেনা যায়। ফলে কাস্টমস হাউসে প্রবেশে একটু কড়াকড়ি করছি।‘

কাস্টমস কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট সকলকে জানানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

যুগ্ম কমিশনার বলেন, কাস্টমস হাউসে প্রবেশ উন্মুক্ত থাকায় অতিরিক্ত লোকের আনাগোনা থাকে। প্রয়োজনের তুলনায় অধিক লোক আসা যাওয়া করে। যেখানে সেখানে দাড়িয়ে গল্প-গুজব করে। এতে কাস্টমস হাউসের স্বাভাবিক কাজে ব্যাঘাত ঘটে।

এছাড়া বিভিন্ন সময়ে নানা ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে বলেও জানান তিনি।

চট্টগ্রাম কাস্টমসের সহকারী কমিশনার(প্রিভেনটিভ) মো.মিনহাজ উদ্দিন পাহলোয়ান বলেন, পরিচয়পত্র পরিদর্শনের মাধ্যমে দপ্তরে প্রবেশের জন্য আদেশ জারি করা হয়েছে। এ আদেশ কাস্টমসের সকল শাখা, সিএন্ডএফ এজেন্ট ও সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরে পাঠানো হয়েছে।

তিনি জানান, চট্টগ্রাম কাস্টমস কর্মকর্তাদের ক্ষেত্রে আগামী ৭ এপ্রিল থেকে আদেশ কার্যকর হবে। অন্যান্যদের ক্ষেত্রে কার্যকর হবে ১০ এপ্রিল থেকে।

বৃহস্পতিবার থেকেই চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের কর্মকর্তারা পরিচয়পত্র প্রদর্শন করে দপ্তরে প্রবেশ করতে দেখা গেছে।

পরিচয়পত্র প্রদর্শনের বাধ্যবাধকতার জন্য কাস্টমস হাউসে অতিরিক্ত লোকের আনাগোনা কমে যাওয়ার পাশাপাশি সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরে আসবে বলে মনে করছেন এ কর্মকর্তা।

কাস্টমস হাউসে কড়াকড়ি আরোপে অন্যান্যবার সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বিরোধীতা করলেও এবার সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের অতিরিক্ত কমিশনার সুরেশ চন্দ্র বিশ্বাস।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, সিদ্ধান্তে বিষয়টি আমরা সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের জানিয়েছি। তারা এ সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে।

চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউস সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আকতার হোসেন বলেন, পরিচয়পত্র প্রদর্শন করে কাস্টমস হাউসে প্রবেশের জন্য আমাদের জানানো হয়েছে। কাস্টমস কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত মেনেই আমরা প্রবেশ করবো। এজন্য আমরা পরিচয় পত্র সংগ্রহ করছি।