চট্টগ্রামে সর্বপ্রথম রথযাত্রার সূচনা রথের পুকুর পাড়ে

প্রকাশ:| রবিবার, ২৫ জুন , ২০১৭ সময় ১০:৪২ অপরাহ্ণ

কেন্দ্রীয় রথযাত্রা উদ্যাপন কমিটির রথপরিক্রমা
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, রথযাত্রা উৎসব এখন সকল ধর্ম-বর্ণের মিলনোৎসবে পরিণত হয়েছে। চট্টগ্রামে সর্বপ্রথম রথযাত্রার সূচনা হয় রথের পুকুর পাড়ে তুলসীধাম থেকে। ১৮শ’ খৃষ্টাব্দের পর নন্দনকাননে স্বামী অদ্বৈতানন্দ পুরী যে রথযাত্রা উৎসবের প্রচলন শুরু করেন, পরবর্তীতে শ্রীমৎ স্বামী অচ্যুতানন্দ পুরী মহারাজ, ঋষিপুত্র শ্রীমৎ স্বামী নারায়ণ পুরী মহারাজের পর বর্তমানে শ্রীমৎ দেবদীপ পুরী মহারাজ এর ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন রেখেছেন। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মিলন তীর্থ চট্টগ্রামে ঈদ-রথযাত্রা একই সময়ে সব ধর্ম-বর্ণের মানুষ একসাথে পালন করছে, এটা আমাদের জন্য সুসংবাদ।
কেন্দ্রীয় রথযাত্রা উদ্যাপন কমিটির উদ্যোগে গত ২৫ জুন রবিবার বিকাল ৩টায় শ্রীশ্রী জগন্নাথদেবের রথযাত্রা উৎসব উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এসব কথা বলেন। পরে শ্রীশ্রী তুলসীধাম প্রাঙ্গণে বেলুন উড়িয়ে ও রথের দড়ি টেনে কেন্দ্রীয় রথযাত্রা পরিক্রমার সূচনা করেন মেয়র। এর আগে কমিটির পক্ষ থেকে মেয়রকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও ক্রেস্ট উপহার দেয়া হয়।
তুলসীধামের মোহন্ত ও ঋষিধাম অধিপতি শ্রীমৎ দেবদীপ পুরী মহারাজের পৌরহিত্যে রথপরিক্রমা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিইউজে’র সহ-সভাপতি নিরুপম দাশগুপ্ত, চসিক কাউন্সিলর নীলু নাগ, জহর লাল হাজারী ও শৈবাল দাশ সুমন, কেন্দ্রীয় রথযাত্রা উদ্যাপন কমিটির সভাপতি তপন ধর (টি.কে), সাধারণ সম্পাদক হিরন্ময় ধর, যোগেশ্বর চৌধুরী, অধ্যাপক স্বপন চৌধুরী, স্বরূপ চৌধুরী শাওন, অনুপ বিশ্বাস, লায়ন ডা. প্রণব বিশ্বাস, হাজী সাহাবুদ্দিন প্রমুখ।
রথযাত্রা উপলক্ষে তুলসীধামে দিনব্যাপী নামযজ্ঞ, মদনমোহন পূজা, জগন্নাথ-সুভদ্রা-বলরাম পূজা, গুরুপূজা ও দিনব্যাপী মহাপ্রসাদ বিতরণ করা হয়। নবনির্মিত কেন্দ্রীয় রথের সাথে ঢোলক ও মঙ্গল শঙ্খ বাদ্য এবং মহাশোভাযাত্রা সহকারে শ্রীকৃষ্ণায়ন, গৌর গিরীধারী মন্দির, পার্বতী ফকির পাড়া, মনোহরখালী, ফিরিঙ্গীবাজার, গঙ্গাবাড়ি, টেকপাড়া, চকবাজার, এনায়েত বাজার, অদ্বৈত-অচ্যুত মিশনের কক্সবাজার, মহেশখালী শাখাসহ চট্টগ্রামের প্রায় সবগুলো মঠ-মন্দিরের রথসমূহ পরিক্রমায় অংশ নেয়। সহস্রাধিক ভক্ত তুলসীধাম প্রাঙ্গণ থেকে রথের দড়ি টেনে নিয়ে সিনেমা প্যালেস থেকে আন্দরকিল্লা হয়ে লাভলেইন ঘুরে পুনরায় রথের পুকুর পাড়ে এসে পরিক্রমা শেষ করেন। বিজ্ঞপ্তি