চট্টগ্রামে ‘বন্দিদশা’ থেকে ফিলিপাইনের দুই নারী উদ্ধার

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৬ এপ্রিল , ২০১৭ সময় ১১:৫৩ অপরাহ্ণ

ফিলিপাইন দূতাবাসের অনুরোধে দেশটির নাগরিক দুই নারীকে তাদের তিন সন্তানসহ নগরীর একটি বাসা থেকে উদ্ধার করেছে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ।  ফিলিপাইনের দুই নারী দুবাইপ্রবাসী জনৈক তফাজ্জল করিমের স্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (০৬ এপ্রিল) সকালে নগরীর নাসিরাবাদ আবাসিক এলাকার ৬ নম্বর সড়কের ২০ নম্বর বাড়ি থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়েছে।  বাড়িটি তফাজ্জল করিমের মালিকানাধীন।

ফিলিপাইনের দুই নারী হলেন, অ্যামিলি সি গ্রুস (৪০) এবং ম্যারি ডি লিয়ন (২৭)।

উদ্ধার হওয়াদের মধ্যে আরও আছে অ্যামিলির ছেলে আশরাফ করিম (৮) ও ইয়াকুব করিম (২১ মাস) এবং ম্যারির ছেলে জায়াফ করিম (২ মাস)।

তিন সন্তানের মধ্যে আশরাফ এবং ইয়াকুব বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী বলে জানিয়েছেন পাঁচলাইশ থানার ওসি মহিউদ্দিন মাহমুদ।  জায়াফের জন্মও বাংলাদেশে বলে জানিয়েছেন ওসি।

ওসি জানান, দুবাইপ্রবাসী তফাজ্জলের বাড়ি রাউজান।  ১১ বছর আগে দুবাইয়ে অ্যামিলিকে বিয়ে করেন তফাজ্জল।  এরপর তাকে বাংলাদেশে নিয়ে আসেন।  প্রথম স্ত্রীকে দেশে রেখে আবারও দুবাইয়ে ফিরে যান।  তিন বছর আগে প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে ডিভোর্স হয়ে গেছে বলে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিয়ে করেন ম্যারিকে।  এরপর তাকেও বাংলাদেশে নিয়ে আসেন।

‘মিথ্যা তথ্য দিয়ে দ্বিতীয় বিয়ের বিষয়টি জানাজানির পর দুই স্ত্রীই তফাজ্জলের উপর ক্ষুব্ধ হন।  এক পর্যায়ে তারা সন্তান নিয়ে নিজ দেশে ফিরে যাবার আগ্রহ দেখান।  কিন্তু তফাজ্জল তাদের নিজ বাসায় মা-বোনসহ স্বজনদের হেফাজতে রেখে আবারও দুবাইয়ে চলে গেছেন। ’

ওসি বলেন, দুই স্ত্রী কার্যত তফাজ্জলের বাসায় বন্দি অবস্থায় ছিল।  তাদের বাইরে বেরুতে দেওয়া হত না।  বিষয়টি ফিলিপাইন দূতাবাস অবহিত হওয়ার পর সিএমপি কমিশনারকে একটি চিঠি দিয়ে তাদের উদ্ধারের অনুরোধ করা হয়।  কমিশনার স্যারের নির্দেশে আমরা তাদের উদ্ধার করে আদালতে পাঠিয়েছি।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (প্রসিকিউশন) নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্তী জানান, ফিলিপাইনের দুই নারী এবং তাদের সন্তানদের মহানগর হাকিম মাসুদ পারভেজের আদালতে হাজির করা হয়। ফিলিপাইন দূতাবাসের পক্ষ থেকে তাদের দায়িত্ব নিয়ে নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর আবেদন করা হয়েছিল। আদালত দূতাবাসের আবেদন গ্রহণ করে তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর আদেশ দেন। এছাড়া সন্তানরা দুই নারীর জিম্মায় থাকবে বলে আদালত আদেশে উল্লেখ করেছেন।


আরোও সংবাদ