চট্টগ্রামে ঝড়ো হাওয়াসহ ভারী বর্ষণ

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| রবিবার, ১০ জুন , ২০১৮ সময় ১১:৫৮ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামে সন্ধ্যা থেকে ঝড়ো হাওয়াসহ ভারী বর্ষণ হচ্ছে। সাগরে অবস্থানরত লঘুচাপের ফলে রাতভর ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে নগরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রবর্তক মোড়, মুরাদপুর, বহদ্দারহাট, চকবাজার, ২ নম্বর গেট, হালিশহরসহ প্রায় এলাকা মধ্যরাতে পানিতে তলিয়ে ছিল।

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, লঘুচাপটি মৌসুমি স্থল নিম্নচাপে পরিণত হওয়ায় তার প্রভাবে চট্টগ্রাম জুড়ে বিরামহীনভাবে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। নিম্নচাপটি রোববার ভোর রাতে সীতাকুন্ড উপকূল দিয়ে বাংলাদেশ সীমান্ত অতিক্রম করেছে। তবে সমুদ্রবন্দরগুলোতে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত বহাল রাখতে বলা হয়েছে।

এদিকে রোববারের ভারী বৃষ্টিপাতে নগরের নিম্নাঞ্চলে জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। সন্ধ্যার পর বৃষ্টির চাপ আরও বেড়ে যাওয়ায় নগরের নিম্নাঞ্চল হাঁটু থেকে কোমর সমান পানির নিচে তলিয়ে যায়। এতে দুর্ভোগ ও বিড়ম্বনায় পড়তে হয় ঈদের বাজারের ক্রেতা-বিক্রেতাদের। বিভিন্ন স্থানে জলাবদ্ধতার কারণে তীব্র যানজটেরও সৃষ্টি হয়।

নগরের চকবাজার কাঁচা বাজারের দোকানি জসিম উদ্দিন বাংলানিউজকে জানান, ভারী বর্ষণে পুরো চকবাজার এলাকা ডুবে যায়। সন্ধ্যার দিকে হাঁটু সমান পানি হলেও রাত ৮টার পর কোমর পরিমাণ পানি জমে যায়।

বিরামহীন বৃষ্টিতে বাকলিয়া, আগ্রাবাদ, হালিশহর এলাকায় বেশিরভাগ বাসার নিচ তলা তলিয়ে যায়। ফলে এসব এলাকার বাসিন্দাদেরকে নিদারুণ দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।

পূর্বাভাস কর্মকর্তা আফজাল হোসেন জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩৯ দশমিক ৮ মিলিলিটার বৃষ্টি রেকর্ড হয়েছে। রোববার (১০ জুন) সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ৪৮ ও রাত ১২টা থেকে সোমববার (১১ জুন) সকাল ৯টা পর্যন্ত ১৬০ মিলিলিটার বৃষ্টি হয়েছে। সোমবারও সারাদিন ভারী বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা রয়েছে।

আবহাওয়া দফতরের বিশেষ বুলেটিনে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির কারণে চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধসের সম্ভাবনা রয়েছে বলে সতর্কবার্তায় জানানো হয়।

পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও দমকা ঝড়ো হাওয়াসহ ভারী (৪৪-৮৮ মিলি মিটার) থেকে অতিভারী (৮৯ মিলি মিটারের বেশি) বর্ষণ হতে পারে। ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির কারণে চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধসের সম্ভাবনা রয়েছে বলে সতর্কবার্তায় জানানো হয়।

উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর ও ঘণীভূত হয়ে মৌসুমে নিম্নচাপে রূপ নিয়েছে। নিম্নচাপটি আরও উত্তর, উত্তর-পূর্ব দিক থেকে অগ্রসর হয়ে রোববার (১০ জুন) দিনগত মধ্যরাতের দিকে সীতাকুণ্ডের ওপর দিয়ে বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত বহাল রেখেছে আবহাওয়া অধিদফতর। পাশাপাশি ভারী বর্ষণের সাথে চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন স্থানে পাহাড়ধসের আশঙ্কা করছে সংস্থাটি।

নিম্নচাপের প্রভাবে রোববার (১০ জুন) সকাল থেকে বৃষ্টিপাত সন্ধ্যা থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। এতে নগরের নিম্নাঞ্চলে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন হাজারো মানুষ।

আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, মৌসুমী নিম্নচাপটি বর্তমানে সন্দ্বীপ ও তসংলগ্ন উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটারে মধ্যে বাতাসের একটানা সর্ব্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার দমকা বা ঝড়ো হাওয়া আকারে ৫০ কিলোমিটার বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর প্রভাবে সাগর মাঝারি ধরনের উত্তাল রয়েছে।

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের ডিউটি অফিসার মাহমুদুল আলম জানান, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় সুস্পষ্ট লঘুচাপটি মৌসুমী নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এর প্রভাবে সারাদিন থেমে থেমে ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। রোববার রাত ৯টা থেকে পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় ৯৫ দশমিক ৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, নিম্নচাপের প্রভাবে উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে বায়ুচাপ পার্থক্যে আধিক্য বিরাজ করছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালার সৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। এসব এলাকায় ঝড়ো হাওয়া ও ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দর সমূহকে ৩ নম্বর সতর্কতা স্থানীয় সর্তকতা সংকেত বহাল রাখা হয়েছে। ভারী বর্ষণের কারণে চট্টগ্রামে বিভাগে পাহাড়ধসের আশঙ্কা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

আবহাওয়ার সতর্ক বার্তায় বলা হয়েছে, মৌসুমী নিম্নচাপের কারণে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলার সমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

এদিকে, ভারীবর্ষণের কারণে পাহাড়ধসে দুর্ঘটনা ঠেকাতে জেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় রোববার নগরের বাটালি হিল, মিয়ার পাহাড়. একে খান ও আমিনজুট

চকবাজার তেলিপট্টি থেকে তোলা ছবি সুবল বড়ুয়া

 


আরোও সংবাদ