‘চট্টগ্রামের সাথে নৌপথে সংযোগ স্থাপনে থাই সরকার কাজ করছে’

mirza imtiaz প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর , ২০১৮ সময় ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রামের সাথে থাইল্যান্ডের সরাসরি নৌপথের সংযোগ স্থাপনে থাই সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সফরে আসা থাইল্যান্ডের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দলের নেতা মানু সিথি প্রসাসানা।

বুধবার দুপুরে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে থাইল্যান্ডের ১৫ সদস্য বিশিষ্ট উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন বাণিজ্য প্রতিনিধি দল চট্টগ্রাম চেম্বারের পরিচালক, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ও স্টেক হোল্ডারদের সাথে মত বিনিময় করেন।

এতে থাইল্যান্ডের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি নেতা মানু সিথি প্রসাসানা বলেন, থাইল্যান্ড ও বাংলাদেশের মধ্যে চমৎকার ব্যবসায়ী সম্পর্ক রয়েছে। তিনি উভয় দেশের মধ্যে অধিকতর অর্থনৈতিক সম্পর্ক উন্নয়ন এবং পারস্পরিক সুযোগ-সুবিধা অন্বেষণ করা এবং মতবিনিময়ের মাধ্যমে সুবর্ণ সম্ভাবনা উন্মোচন এ সফরের উদ্দেশ্য বলে মন্তব্য করেন।

প্রতিনিধি দলের নেতা চট্টগ্রামের সাথে থাইল্যান্ডের সরাসরি নৌপথের সংযোগ স্থাপনে থাই সরকার কাজ করছে বলে জানান। এর ফলে উভয় দেশ দক্ষিণ এশিয়ার অর্থনৈতিক করিডোরের সাথে সংযুক্ত হবে এবং জাহাজে পণ্য চলাচলের মাধ্যমে ব্যবসা সম্প্রসারিত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম গত বছরে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের পরিমাণ ১ দশমিক ৩১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার উল্লেখ করে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে থাইল্যান্ডে বাংলাদেশী পণ্যের নিয়মিত প্রদর্শনের মাধ্যমে পরিচিতি ও বাজার সৃষ্টির উপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি এক্ষেত্রে ওষুধ, পাট ও পাটজাতপণ্য, চামড়া ও চামড়াজাতপণ্য এবং রপ্তানি ঝুড়িতে নিত্য নতুন অন্তর্ভূক্ত পণ্য আমদানি বৃদ্ধির আহবান জানান। এছাড়া র‌্যানং পোর্ট এর সাথে চট্টগ্রাম বন্দরের সরাসরি জাহাজ চলাচল শুরুর মাধ্যমে আমদানি-রপ্তানিতে সময় ও ব্যয় হ্রাসকরা সম্ভব হবে বলেও জানান চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুলআলম।

থাই বিনিয়োগ বোর্ড প্রতিনিধি অপিপং খুনকর্ন বডিন্টার বাংলাদেশকে বিনিয়োগের টার্গেট দেশ উল্লেখ করে থাই সরকার তার দেশের উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে বিনিয়োগে উৎসাহিত করছে বলে জানান। প্রতিনিধিদল মতবিনিময় শেষে বিটুবি সেশনে অংশগ্রহণ করেন এবং রপ্তানি পণ্যের এক্সিবিশন হল পরিদর্শন করেন।

অন্যদের মধ্যে থাইবিনিয়োগ বোর্ড’র সিনিয়র ইনভেস্টমেন্ট কর্মকর্তা অপিপং খুনকর্ন বডিন্টার, চট্টগ্রাম চেম্বারসহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব এএইচএম. সফিকুজ্জামান ও চেম্বারের প্রাক্তন পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ বক্তব্য রাখেন।