‘চট্টগ্রামের উন্নয়ন মানে দেশের উন্নয়ন’

প্রকাশ:| শনিবার, ১৩ আগস্ট , ২০১৬ সময় ০৮:০৩ অপরাহ্ণ

এবি ব্যাংকচট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এর ‘ক্লিন ও গ্রিন সিটির ভিশন কার্যক্রম বাস্তবায়নে সহযোগী হলেন দি চিটাগং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি এবং এ বি ব্যাংক লি:। নগরীর ডোর টু ডোর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমকে গতিশীল করতে ১৩ আগষ্ট শনিবার, সকালে নগর ভবনে এ বি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রেসিডেন্ট জনাব শামীম আহমদ চৌধুরী চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন এর নিকট ১০টি ভ্যানগাড়ী ও ১ শত বিন হস্তান্তর করেন এবং চিটগং চেম্বার ওয়ার্ল্ড টেড সেন্টারে প্রতীক হিসেবে ১০টি ভ্যানগাড়ী হস্তান্তর করেন। ভ্যানগাড়ী ও বিন গ্রহণ কালে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বিন ও ভ্যানগাড়ী প্রদানের জন্য চেম্বার ও এ বি ব্যাংককে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, নাগরিক সেবায় যারাই সহযোগিতায় এগিয়ে আসবে তাদের সকলকে সিটি কর্পোরেশন আন্তরিকভাবে স্বাগত জানাবে। মেয়র আশা করেন সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় চট্টগ্রাম নগরীকে পরিবেশ সম্মত বাসপোযোগী, আধুনিক ও বিশ্বমানের একটি নগরী গড়ে তোলা সম্ভব হবে। মেয়র বলেন, চট্টগ্রামের উন্নয়নের দায়িত্ব বাংলার প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতে। তাঁর হাতকে শক্তিশালী করতে জনগন আমাকে মেয়র পদে নির্বাচিত করেছেন। কোন মহল পেছন থেকে অসহযোগীতা ও ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে উন্নয়নের চাকাকে বাধাগ্রস্ত করতে চাইলে চট্টগ্রামবাসী ঐক্যবদ্ধ ভাবে তা প্রতিহত করবে। এ প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, চট্টগ্রামের উন্নয়ন মানে দেশের উন্নয়ন। চট্টগ্রাম বন্দরনগরী ও বাণিজ্যিক নগরী। চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবসা-বাণিজ্য এবং আমদানী রপ্তানীর ক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। দেশের অর্থনীতির হৃদপিন্ড চট্টগ্রাম বন্দর। দেশ স্বাধীন হওয়ার কারণে আজ অনেকেই বিভিন্ন জায়গায় সুযোগ-সুবিধা ও দায়িত্ব পেয়েছে। যদি কেউ নিজেদের স্বার্থ হাছিল করার জন্য সরকার এবং দেশের ভাবমূর্তিকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে দুর্নীতির আশ্রয় নিতে চান তা কারোর জন্য সুফল বয়ে আনবে না। মেয়র পদে প্রার্থী হয়ে জনগনের কাছে যে ওয়াদা দিয়েছি তা যেকোন ত্যাগ স্বীকার করে বাস্তবায়ন করবোই। দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, আত্মীয়করণ বা দলীয়করণ এ ধরনের নীতি আমি অপছন্দ করি। নিজে দুর্নীতি করি না এবং কাউকে দুর্নীতি করার জন্য আশ্রয় প্রশ্রয় দিতে পারি না। সে কারণে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে দুর্নীতি মুক্ত, স্বচ্ছ ও জবাবদিহী একটি আদর্শ প্রতিষ্ঠানের পরিনত করার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছি। আমি আশা করি নগরবাসী ঐক্যবদ্ধ ভাবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হবে। নগরীকে পরিবেশ বান্ধব বিশ্বমানের আধুনিক নগরী হিসেবে গড়ে তোলার কর্ম পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। আগামী ৩ বছরের মধ্যে চট্টগ্রাম পরিবেশ বান্ধব , পরিচ্ছন্ন, সবুজ নগরীতে উন্নিত হবে। মেয়র সকল প্রতিকূলতা ও ষড়যন্ত্র অতিক্রম করে তাঁর ভিশন বাস্তবায়নে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।
চট্টগ্রাম চেম্বারের পক্ষে ভ্যানগাড়ী প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সাংসদ আলহাজ্ব এম আবদুল লতিফ। এতে সভাপতিত্ব করেন চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম। অনুষ্ঠানে চেম্বারের পক্ষে ভ্যানগাড়ী হস্তান্তর করেন চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম। এ সময় চট্টগ্রাম চেম্বারের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট নুরুন নেওয়াজ সেলিম, ভাইস প্রেসিডেন্ট সৈয়দ জামাল আহমদ, পরিচালক ও কাউন্সিলর মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী, মো. মোস্তফা কামাল চৌধুরী, মাজহারুল হক শাহ, মো. জহিরুল ইসলাম চৌধুরী, মো. অহিদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন, কাউন্সিলর মো. হাবিবুল হক, অঞ্চন কুমার দাশ, রকিবুর রহমান টুটুল, মো. জাহিদুল হক, মো. আরিফ ইফতেখার, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা সফল আলী, শেখ মাহমুদ ইসহাক, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, ২৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আবদুল কাদের, চেম্বার সেক্রেটারী ইনচার্জ ইঞ্জিনিয়ার মো. আলমগীর চৌধুরী এবং এ বি ব্যাংকের ভ্যান গাড়ী ও বিন হস্তান্তর করে এম ডি শামীম আহমদ চৌধুরী। এ সময় এ বি ব্যাংকের নির্বাহী ভাইস প্রেসিডেন্ট ও রলিশনশিপ ম্যানেজার জি এম রিজভি, সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম ও সাংস্কৃতিক কর্মী সাইফুল ইসলাম বাবু সহ এ বি ব্যাংক এর অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।