চকরিয়া মালুমঘাটে বনবিভাগের ২০ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ॥ ফাঁকা গুলি বর্ষণ

প্রকাশ:| সোমবার, ৩ মার্চ , ২০১৪ সময় ১০:১৮ অপরাহ্ণ

মুহাম্মদ জিয়াউদ্দীন ফারুক,চকরিয়া
চকরিয়া মালুমঘাটে বনবিভাগের অভিযানে ২০ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ডুলাহাজারা বনবিট কর্মকর্তা মো.মামুন মিয়ার নেতৃত্বে বনকর্মীরা উপজেলার মালুমঘাট আইডিয়াল স্কুলের পেছনে আগর বাগান এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান চালাতে গেলে দখলবাঁজ চক্রের লোকজন বনকর্মীদের আক্রমনের চেষ্টা চালায়। এসময় বনকর্মীরা ৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁেড় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের ফাঁসিয়াখালী-ফুলছড়ি রেঞ্জের সহকারী বনসংরক্ষক মো.আসলাম মজুমদার বলেন, গতকাল সোমবার সকালে মালুমঘাট আইডিয়াল স্কুলের পেছনে আগর বাগান দখল করে স্থানীয় আমির হোসেন ও বারেক মিয়ার নেতৃত্বে ২০-২৫জনের একটি চক্র নতুন অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের চেষ্টার খবর পেয়ে ডুলাহাজারা বনবিট কর্মকর্তা মামুন মিয়াসহ বনকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদেরকে বাঁধা দেয়। এসময় দখলবাঁজ চক্রের সদস্যরা বিভিন্ন অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে উল্টো বনকর্মীদের উপর হামলার চেষ্টা করেন। তিনি বলেন, বিষয়টি তাকে জানানো হলে পরে আরো বনকর্মীকে সাথে নিয়ে তিনি ও রেঞ্জ কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে পৌঁেছ অভিযান চালিয়ে নতুন-পুরাতন মিলিয়ে প্রায় ২০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেন।
ফাঁঁিসয়াখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা খাঁন হাফিজুর রহমান বলেন, দখলবাঁজরা আওয়ামীলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে এসব অপকর্মে জড়িত রয়েছে। উচ্ছেদ হওয়া অবৈধ স্থাপনার মধ্যে শেখ রাসেল সংসদের নামে একটি স্থাপনাও রয়েছে। তিনি বলেন, স্থানীয় নুরুল আমিন ও রহমত উল্লাহসহ তাদের সহযোগিরা বনবিভাগের জায়গা দখলে রাখতে শেখ রাসেল সংসদের নাম ব্যবহার করে স্থাপনার সামনে একটি সাইনর্বোড টাঙ্গিয়ে দেয়।
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা মো.শাহ-ই-আলম বলেন, আগর বাগান দখল করে নতুন অবৈধ স্থাপনা নির্মাণকারী দখলবাঁজ চক্রের বিরুদ্ধে মামলার প্রমÍুতি চলছে।