‘গ্র্যান্ড সুলতান টি-রিসোর্ট অ্যান্ড বলরুম রোশনী মহল’-এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৭ ডিসেম্বর , ২০১৩ সময় ১০:৫৭ অপরাহ্ণ

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ১৩.৬ একর জায়গা নিয়ে সম্পূর্ণ দেশী বিনিয়োগে নির্মিত হয়েছে বাংলাদেশের প্রথম পাঁচ তারকা মানের ‘গ্র্যান্ড সুলতান টি-রিসোর্ট অ্যান্ড গলফ’। বুধবার সন্ধ্যায় ‘গ্র্যান্ড সুলতান টি-রিসোর্ট অ্যান্ড বলরুম রোশনী মহল’-এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে। এটি উদ্বোধন করেন এক্সকারশন অ্যান্ড রিসোর্টস বাংলাদেশ লি. (‘গ্র্যান্ড সুলতান টি-রিসোর্ট অ্যান্ড গলফ’-এর সহযোগী প্রতিষ্ঠান)-এর চেয়ারম্যান খাজা টিপু সুলতান। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এক্সকারশন অ্যান্ড রিসোর্টস বাংলাদেশ লি.-এর এমডি সোহেল হোসেন ইবনে বতুতা, টেকনিক্যাল ডিরেক্টর বিকেএস ইনান, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ফারুক রহমান, গ্র্যান্ড সুলতান টি-রিসোর্ট অ্যান্ড গলফের জিএম টনি খানসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জানানো হয় এটি কেবল কোম্পানির নয় বরং হয়ে উঠবে এদেশের সকল মানুষের সম্পদ। বিশ্বমানের সুযোগ-সুবিধা নিয়ে গড়ে ওঠা এ অবকাশ কেন্দ্র দেশের গৌরব। এই এলাকায় এ রকম একটি অবকাশ কেন্দ্রের চাহিদা ছিল দীর্ঘদিনের আজ সেই চাহিদাটি পূরণ হলো। বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পকে আন্তর্জাতিক মর্যাদার আসনে তুলে ধরতেই গ্র্যান্ড সুলতানের এই অভিযাত্রা। এর উদ্যোক্তারা আরও দাবি করেন, গ্র্যান্ড সুলতান শ্রীমঙ্গল তথা বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটকে বদলে দেবে। রিসোর্টের বিভিন্ন সুবিধাদীর মধ্যে রয়েছে আধুনিক সকল সুবিধাসহ ২,০০,০০০ বর্গফুট জায়গায় গড়ে তোলা তলা ভবনের ১৪৫টি কক্ষ, এর মধ্যে ৪৫টি কিং সাইজ আর ৪৩টি কুইন সাইজ কক্ষ। এখানে নাইন হোল গলফ কোর্স ছাড়াও রয়েছে লন টেনিস, ব্যাডমিন্টন, বিলিয়ার্ড ও টেবিল টেনিস খেলার আয়োজন। এছাড়া শিশুদের জন্য আছে আলাদা খেলার জোন। রিসোর্টটিতে অ্যামিবা আকৃতির বিশাল সুইমিংপুলসহ সুনিয়ন্ত্রিত তাপমাত্রার সর্বমোট ৩টি সুইমিংপুল আছে। রিসোর্টে রয়েছে থ্রি-ডি থিয়েটার, যেখানে ৪৪ জন একসঙ্গে বসে এই থিয়েটারে সিনেমা উপভোগ করতে পারবেন। আছে সুবিশাল পাঠাগার। রিসোর্টে রয়েছে ১২০০ জনের সংকুলান সমৃদ্ধ ‘রোশনীমহল’ এবং ৭৫০ জনের স্থান সংকুলান সুবিধাসমৃদ্ধ ‘নওমী মঞ্জিল’ নামের ব্যাংকোয়েট হল। এছাড়া রয়েছে ফোয়ারা ডাইন, শাহী ডাইন ও অরণ্য বিলাস নামের ৩৩০ আসন বিশিষ্ট পাঁচ তারকা মানের রেস্টুরেন্ট। বিশেষ আকর্ষণ আছে গলফ পাহাড়িকা, পুল ডেক ও ক্যাফে মঙ্গল নামে তিনটি ক্যাফে। কর্পোরেট অতিথিদের জন্য আছে ভিন্ন মাত্রার সুবিধা। রিসোর্টে তিনটি বিশালাকৃতির দৃষ্টিনন্দন রুচিশীল সভাকক্ষ ছাড়াও অত্যাধুনিক সুসজ্জিত জিমনেসিয়ামসহ রয়েছে স্পা, সাউনা, জাকুজি ও ম্যাসাজ পার্লারের ব্যবস্থা।