গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ডে বিগত ৪ বছরে ৭১টি প্রকল্প হয়েছে

প্রকাশ:| সোমবার, ১ ডিসেম্বর , ২০১৪ সময় ১০:৪৪ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম বলেছেন, ৩৬নং গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ডে বিগত ৪ বছরে ৭১টি প্রকল্পে ১৪ কোটি ৪ লক্ষ ৬ হাজার টাকা ব্যয় করা হয়েছে। তিনি বলেন, কে বি দোভাষ সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ভবন নির্মাণে ১ কোটি ৭৬ লক্ষ টাকা ব্যয় হয়। এছাড়াও সুপেয় পানির জন্য ৩টি ডিপটিউবওয়েল স্থাপনে ১৫ লক্ষ টাকা ব্যয় করা হয়েছে। সিটি মেয়র বলেন, দেশের হৃদপিন্ড চট্টগ্রাম বন্দর ৩৬নং ওয়ার্ডে। এই বন্দর দিয়ে ৯০ ভাগ আমদানি-রপ্তানি সম্পাদিত হয়। চট্টগ্রাম বন্দর চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে বছরে প্রায় ৪০ কোটি টাকা হোল্ডিং ট্যাক্স দিয়ে উন্নয়ন কাজে সহযোগিতা করছে। তিনি বলেন, রাজস্ব আদায়ে গতিশীলতা আসায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পরিচালনায় সহায়ক হচ্ছে। সিটি মেয়র বলেন, রাজস্ব খাতের আয় থেকে বেতন ভাতা ও অন্যান্য কর্মকান্ড পরিচালনার পরও বছরে প্রায় ১ শত কোটি টাকার উন্নয়ন করা সম্ভব। তিনি বলেন, ডিসেম্বর বিজয়ের মাস। ১৯৭১ সনে ৯ মাসব্যাপী মুক্তি ও স্বাধীনতা যুদ্ধের সমাপ্তি ঘটে ডিসেম্বর মাসে। মহান বিজয়ের ৪৩ বছর পার করে ৪৪তম বিজয় দিবস ১৬ ডিসেম্বর পালিত হবে। মেয়র বলেন, ৪৪তম গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ডে বিগত ৪ বছরে ৭১টি প্রকল্প হয়েছেবিজয় দিবসে ৮০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সিটি কর্পোরেশন সম্মাননা প্রদান করবে। তিনি বলেন, নগরীর আরেফিন নগরে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য মনোরম ও ধর্মীয় পরিবেশে পৃথক কবরস্থান করা হয়েছে। মেয়র বলেন, ১৯৭১ সনের বীর শহীদদের বধ্যভূমি সংরক্ষণ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও ভাষা শহীদদের নামে রাস্তার নামকরণ কর্মসূচি অব্যাহত আছে। তিনি বলেন, অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের হোল্ডিং ট্যাক্স মওকুফ সহ মুক্তিযোদ্ধাদের ক্ষেত্রে প্রতীকী হোল্ডিং ট্যাক্স নির্ধারণ করা হয়েছে। চাকুরীর ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধাদের পোষ্য এবং প্রপৌত্রদের চাকুরীর ব্যবস্থা করা, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান, স্বাধীনতা ও একুশে পদক প্রদান কর্মসূচি অব্যাহত আছে। মেয়র সিটি কর্পোরেশনের সার্বজনীন ও অসাম্প্রদায়িক কার্যক্রমে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। ১ ডিসেম্বর ২০১৪খ্রি. সোমবার সন্ধ্যায় নগরীর ৩৬নং ওয়ার্ডে বারিক মিয়া স্কুল মাঠে মেয়র ও কাউন্সিলর নির্বাচনের ৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে অনুষ্ঠিত সুধি সমাবেশে প্রধান অতিথি’র ভাষণে সিটি মেয়র এ সব তথ্য তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ৩৬নং গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ২৮, ২৯ ও ৩৬নং সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিসেস জান্নাতুল ফেরদাউস। সুধি সমাবেশে রাজনৈতিক, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের আলহাজ্ব আব্দুল হাকিম সওদাগর, শামসুল আলম, সুলতান আহমদ, হুমায়ন কবির, কমান্ডার সাহাব উদ্দিন, চসিক তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম সহ অন্যান্য কর্মকর্তা গণ বক্তব্য রাখেন।
সুধি সমাবেশের শুরুতে বিগত ৪ বছরের উন্নয়ন কর্মকান্ডের সার্বিক চিত্র ভিডিও ডকুমেন্টের মাধ্যমে বড় পর্দায় তুলে ধরা হয় এবং ছাপানো বই বিতরণ করা হয়। পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করা হয়।