গোপালগঞ্জে ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় ৫ জনের ফাঁসি

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৪ আগস্ট , ২০১৪ সময় ০৬:২৯ অপরাহ্ণ

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর থানার একটি হত্যা মামলায় পাঁচ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছে ঢাকার একটি আদালত।

ঢাকার ৩ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এ বি এম সাজেদুর রহমান বৃহস্পতিবার এই রায় ঘোষণা করেন।

অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার বাকি ছয় আসামিকে খালাস দেন তিনি।

মৃত্যুদণ্ড পাওয়া পাঁচজন হলেন- লেলিন সিকদার, মো. মনির হোসেন, মো. স্বপন মোল্লা ওরফে ডালিম, মো. ওবায়দুল শেখ ওরফে ইবাদুল শেখ ও তপন কাজী ওরফে বাঘা।

আসামিদের মধ্যে মনির ও স্বপন মোল্লা পলাতক রয়েছেন।

ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মো. মাহবুবুর রহমান জানান, ২০০৬ সালের ৩০ জুলাই রাতে আসামিরা মুকসুদপুরের শিপন কাজী ওরফে জুনুনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের মৃত্যুদণ্ড দেন বিচারক।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, শিপন কাজী মুকসুদপুরের মামার বাড়িতে থেকে পড়ালেখা করতেন। তিনি পল্লী উন্নয়ন সমিতির ব্যবসা করে পড়ালেখার খরচ চালানোর পাশাপাশি মায়ের কাছে টাকা পাঠাতেন।

মাহবুবুর রহমান বলেন, আসামি মনির, ওয়ায়দুল ও ডালিমকে টাকা দিয়েছিলেন শিপন। কিন্তু তারা টাকা পরিশোধ না করে বাকি আসামিদের নিয়ে শিপনকে হত্যা করে এবং স্থানীয় উজানি খালে লাশ ডুবিয়ে দেয়।

পরদিন মুকসুদপুরের নৌখণ্ডা জলির পাড় কাঁচা রাস্তার পাশে উজানি খালের বাঁশের সাঁকোর নিচে লাশ ভেসে ওঠে।

শিপনের মা মরিয়ম বেগম ওইদিনই মুকসুদপুর থানায় এই হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি গত বছর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করার পর পুলিশ ১১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়।

এ মামলায় ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষে ১৪ জন সাক্ষ্য দেন।