গোপন সুপারকলোনিতে ১৫ লাখ পেঙ্গুইন!

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৮ মার্চ , ২০১৮ সময় ০২:০৮ অপরাহ্ণ

সবার চোখের আড়ালে ছিল জায়গাটি। যাকে বলে ‘লোনলি প্ল্যানেট’। বিশ্ব উষ্ণায়নের জেরে যখন বরফের খোঁজে ত্রাহি অবস্থা অ্যাডেলি পেঙ্গুইনদের, তখন পূর্ব অ্যান্টার্কটিকের ডেঞ্জার আইল্যান্ডসে দেখা গেল ১৫ লাখেরও বেশি অ্যাডেলি পেঙ্গুইন নিশ্চিন্তে বসবাস করছে।

 

বিজ্ঞানীরা শুক্রবার এই ঘোষণা দিয়েছেন। তারা ওই এলাকার নাম দিয়েছেন সুপারকলোনি। বৈশ্বিক উষ্ণায়নের কারণে বরফ গলে যাওয়ায় বিলুপ্তির মুখে আছে এই ধরনের পেঙ্গুইন।

 

পশ্চিম অ্যান্টার্কটিক থেকে মাত্র ১৬০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এই ডেঞ্জার আইল্যান্ডে অ্যাডেলি পেঙ্গুইনই বেশি চোখে পড়ে। কিন্তু গত ৪০ বছর ধরে বরফ মাত্রাতিরিক্ত হারে গলায় এবং খাবার কমে যাওয়ায় এই প্রজাতির পেঙ্গুইন কমেছে ব্যাপকহারে। এহেন অবস্থায় হঠাত্‍‌ই বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেছেন অ্যান্টার্কটিক পেনিনসুলার উত্তরের এই সুপারকলোনি।

 

 

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের স্টোনি ব্রুক ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক হিদার লিঞ্চ বলেন, কয়েক মাস আগেও ডেঞ্জার আইল্যান্ডে পেঙ্গুইন দেখা যায়নি। এখন দেখছি ১৫ লাখ পেঙ্গুইনের বাস।

 

বিজ্ঞানীরা মনে করছেন, এই জায়গাটি বহু বছর ধরেই প্রত্যন্ত। মানুষের পা পড়েনি। তাই নিশ্চিন্তে বসতি গড়েছে পেঙ্গুইনের দল। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে একদল অভিযাত্রী দেখেন, কয়েকশো পাখি পাথুরে মাটিতে বসে আছে। তারপরেই শুরু হয় খোঁজ। ড্রোনেই ধরা পড়ে পেঙ্গুইনদের অবাক করা এই বসতি।

 

বিজ্ঞানীরা বলেছে, এই এলাকাটি বেশিরভাগ সময় ঘন বরফ দ্বারা আচ্ছাদিত থাকে। এমনকি গ্রীষ্মের সময়ও বরফের উচ্চতা কমে না, এ ফলে সেখানে সার্ভে করা কঠিন। এ কারণে এই দ্বীপকে বিপজ্জনক দ্বীপ বলা হয়। সূত্র: চ্যানেল নিউজএশিয়া ও এই সময়