গুদাম থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় কর্মচারীর লাশ উদ্ধার, হত্যার অভিযোগ

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১০ নভেম্বর , ২০১৬ সময় ০৯:২১ অপরাহ্ণ

নগরীর কোতোয়ালী থানার টেরিবাজার কবির মার্কেটের জিএস ক্লথ স্টোরের সাবেক এক কর্মচারীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে ওই দোকানের মালিক গিয়াসসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে।

ফারুক (২৪) নামে সাবেক ওই কর্মচারীর মরদেহ বৃহস্পতিবার বিকেলে মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় একটি গুদাম থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশের ধারণা ফারুককে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ফারুক গত ঈদুল আযহা পর্যন্ত গিয়াসের মালিকানাধীন জিএস ক্লথ স্টোরে চাকরি করতো। ঈদের পর থেকে দোকানে আসেনি। কিছুদিন আগে রেয়াজউদ্দিন বাজারে আরেকটি দোকানে চাকরি করতে আসে ফারুক।

বাড়ি যাওয়ার সময় ফারুক দোকান থেকে ৬১ হাজার টাকা নিয়ে গেছে অভিযোগ করে দোকানের মালিক গিয়াস বুধবার টেরিবাজারে ডেকে আনে। দোকানের মালিক গিয়াস, ম্যানেজার নাছির ও দুই কর্মচারী তারেক ও শাহেদ এবং টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতির আইন বিষয়ক সম্পাদক মাহবুব ফারুককে নিয়ে রাতে বৈঠকে বসে। এসময় তারা ফারুককে টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য চাপ দিলে সে অপারগতা প্রকাশ করে।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) শাহ মোহাম্মদ আবদুর রউফ জানান, ফারুক টাকা দিতে না পারায় বৈঠকে উপস্থিত থাকা পাঁচজন তাকে একটি কক্ষে আটকে রাখে। বৃহস্পতিবার বিকেলে খবর পেয়ে কোতোয়ালী থানা পুলিশ মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় জিএস স্টোরের গুদাম থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় ফারুকের মরদেহ উদ্ধার করে।

এ ঘটনার পর থেকে দোকানের মালিক গিয়াসসহ বৈঠকে উপস্থিত পাঁচজন পলাতক রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।পুলিশের ধারণা টাকা দিতে না পারায় ফারুকের উপর নির্যাতন চালিয়ে খুন করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। কারণ ওই গুদামের দরজা খোলা পাওয়া গেছে এবং আত্মহত্যার কোন চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

টেরিবাজার ব্যবসায়ী সূত্রে জানা গেছে, সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে না জানিয়ে বিষয়টি নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন আইন বিষয়ক সম্পাদক।