গুণীজন সম্মাননায় ভূষিত হলেন অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শুক্রবার, ৩১ আগস্ট , ২০১৮ সময় ১১:২৬ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেস ক্লাবের সংগ্রামী সভাপতি ও পাঠকপ্রিয় সাপ্তাহিক আলোকিত সন্দ্বীপ পত্রিকার সম্পাদক অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান অনলাইন সাংবাদিকদের সামাজিক স্বীকৃতি আদায় আন্দোলনে অগ্রনী ভূমিকা রাখায় তাকে গুণীজন হিসেবে সম্মাননা প্রদান করে প্রাইমারী চিকিৎসক সোসাইটি।

গতকাল ২৯ আগষ্ট ২০১৮, বুধবার চট্টগ্রাম নগরীর লাভ লেইন মোড় সংলগ্ন মেট্রোপোল কমিউনিটি সেন্টারে ফরটিসের সহযোগীতায় আয়োজিত সায়েন্টিফিক সেমিনার ও গুনীজন সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে উক্ত সম্মাননা প্রদান করা হয়।

প্রাইমারী চিকিৎসক সোসাইটির চেয়ারম্যান সাংবাদিক মাহাবুবুল আলমের উদ্বোধনী বক্তব্যে সংগঠনের চট্টগ্রাম জেলার সভাপতি নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে উক্ত গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন- চট্টগ্রাম ম্যাডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট মেম্বার ও বাংলাদেশ ম্যাডিকেল অ্যাসোসিয়েশন- বিএমএ’র কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ডা. শেখ শফিউল আজম।

জানা গেছে- মুকতাদের আজাদ খান নেশার বশে সরাসরি সাংবাদিকতায় প্রবেশ করেন ২০০৩ খ্রিস্টাব্দে। ওই সময়ে তিনি সন্দ্বীপে একটি কলেজে অধ্যাপনার পাশাপাশি দৈনিক আজাদী, আমার দেশ, এনটিভি ও দি গার্ডিয়ানে সন্দ্বীপ প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতেন।

দৈনিক আজাদী-তে কাজ করেন প্রায় ১২ বছর। সন্দ্বীপ অঞ্চলে পাঠকপ্রিয় সাপ্তাহিক আলোকিত সন্দ্বীপ তাঁর সম্পাদনায় পাঠকের হাতে আসে ২০১৩ খ্রিষ্টাব্দে।

সন্দ্বীপে প্রিন্ট-অনলাইন সাংবাদিকতা নবজাগরণে তাঁর ভূমিকা অনবদ্য। তিনি সন্দ্বীপে শিক্ষার গুনগত মানোন্নয়নে যেমন দীর্ঘদিন কাজ করছেন তেমনি আলোকিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপনেও রেখেছেন ভূমিকা।

তিনি বেসরকারি শিক্ষকদের জাতীয় সংগঠন নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশন চট্টগ্রাম জেলার নির্বাচিত সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক। এখন তিনি চট্টগ্রাম নগরীর একটি বেসরকারি কলেজে অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

দেশ- বিদেশে বহুল আলোচিত সন্দ্বীপ সীমানা রক্ষা আন্দোলনও সূচনা করেছিলেন মুকতাদের আজাদ খান। তবে, পরবর্তীতে আন্দোলনটি ছিনতাইয়ের শিকার হয়। গুপ্তচরা ঘাট ট্রাজেডিতে একমাত্র তিনিই রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করেছিলেন।

২০১৪ খ্রিষ্টাব্দ থেকে তিনি অনলাইন আন্দোলনে সামনে থেকে কাজ করছেন। তিনি একাধিক অনলাইন নিউজ পোর্টালে সম্পাদক/ প্রধান সম্পাদক/ নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে যুক্ত আছেন। মুকতাদের আজাদ খান চট্টগ্রাম অনলাইন প্রেস ক্লাবের অন্যতম উদ্যোক্তাও বটে।

গুণীজন অধ্যক্ষ মুকতাদের আজাদ খান বলেন- অনলাইন সাংবাদিকদের সামাজিক স্বীকৃতি আদায় আন্দোলনে আমি ২০১৪ খ্রিস্টাব্দ থেকে কাজ করছি। নানান বাধা-বিপত্তি হুমকির দুমকির পরও এই আন্দোলনে আছি। যতক্ষন না পর্যন্ত আবেদিত অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলো নিবন্ধিত হবে ততক্ষণ পর্যন্ত চলমান এই আন্দোলনে থাকব ইনশাল্লাহ।

তিনি অন্য এক প্রসঙ্গে বলেন- প্রকৃতপক্ষে গুণীজন সম্মাননা পাওয়ার সময় আমার এখনো হয়নি। কারণ, কাজ শুরু করলাম মাত্র। তারপরও আমাকে এই বিরল সম্মানে ভূষিত করায় প্রাইমারী চিকিৎসক সোসাইটিকে ধন্যবাদ।