গাড়ির গতি কমিয়ে জীবন বাঁচাতে হবে

প্রকাশ:| বুধবার, ১০ মে , ২০১৭ সময় ১২:২৬ পূর্বাহ্ণ

নিরাপদ সড়ক চাই এর আলোচনা সভায় বক্তারা

গতি কমাও জীবন বাঁচাও শীর্ষক সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধ বিষয়ক আলোচনা সভা ও গাড়ী চালকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বক্তারা বলেছেন, গাড়ির অনিয়ন্ত্রিত গতি দুর্ঘটনার অন্যতম একটি কারণ। নিয়ন্ত্রিত গাড়ি চালালে সড়কে সিংহ ভাগ দুর্ঘটনা কমবে। তাই এখন গাড়ির গতি কমিয়ে জীবন বাঁচাতে হবে।
নিরাপদ সড়ক চাই চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির সভাপতি এস এম আবু তৈয়বের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক বলেন, একটি সড়ক দুর্ঘটনায় নানাবিদ কারণ ও সম্পর্ক থাকে। এর মধ্যে চালক, যাত্রী, পথচারি অন্যতম। তাই প্রত্যেককেই সড়ক দুর্ঘটনার ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে। কেবল এক পক্ষ কে দোষারোপ করলে চলবে না।
তিনি বলেন, পথচারিকে সচেতনভাবে রাস্তা পারাপার হতে হবে। কানে মোবাইল নিয়ে রাস্তা পার হলে দুর্ঘটনা হওয়ার সমুহ সম্ভাবনা থাকে। তাই পথচারিকে অবশ্যই সচেতন হয়ে সড়ক ব্যবহার ও রাস্তা পারাপার হতে হবে। আমাদের দেশে চালকদের আট ঘণ্টা গাড়ি চালানোর নিয়ম করতে হবে। সক্ষমতার বেশি গাড়ি চালালে চালকেরও সমস্যা হওয়ার আশঙ্খা থাকে।
আজ ৯ মে ২০১৭, মঙ্গলবার নগরীর দক্ষিণ খুলশী বিজিএমইএ ভবনস্থ মাহাবুব আলী হলে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ এনামের সঞ্চালনায় গতি কমাও জীবন বাঁচাও শীর্ষক আলোচনা সভা ও গাড়ী চালকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান বক্তা ছিলেন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’র কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন, বিশেষ অতিথি ছিলেন বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি মঈনউদ্দিন আহমেদ (মিন্টু), কাস্টমস ক্লিয়ারিং এন্ড ফরওয়াডিং এসোসিয়েশনের নির্বাহী সদস্য ও এইচ এ ইন্টারন্যাশনাল এর কর্ণধার মুহাম্মদ জামাল উদ্দিন বাবলু, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক ও চ্যানেল আই’র ব্যুরো প্রধান চৌধুরী ফরিদ, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পরিবহন মালিক গ্র“পের মহাসচিব বেলায়েত হোসেন (বেলাল), বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক শাখার সহ-সভাপতি মোঃ হুমায়ূন কবির, চট্টগ্রাম হালকা মোটরযান চালক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ সেলিম মিয়া, সিনিয়র সহ-সভাপতি শামসুল ইসলাম আরজু, কর্ণফুলী অটো রিক্সা অটো টেম্পো ও চার ষ্টোক শ্রমিক কল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম। ধন্যবাদ বক্তব্য রাখেন নিরাপদ সড়ক চাই চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক শফিক আহমেদ সাজীব।
অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নিরাপদ সড়ক চাই’র কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসানুল হক কামাল, যুগ্ম মহাসচিব লিটন এরশাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আজাদ হোসেন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মিরাজুল মঈন জয়, প্রশিক্ষণ সম্পাদক ফারিহা ফাতেহ, দৈনিক আজাদীর চীফ রির্পোটার হাসান আকবর, এনটিভির সিনিয়র রির্পোটার আরিচ আহমেদ শাহ্, ফুলকলি’র জিএম মোহাম্মদ আবদুছ ছবুর, নিসচা চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক আরশাদুর রহমান, অর্থ সম্পাদক মোঃ এমদাদুল হক , প্রচার সম্পাদক রেজা মুজাম্মেল, সমাজ কল্যাণ ও ক্রীড়া সম্পাদক মোরশেদুর রহমান নয়ন প্রমুখ।
প্রধান বক্তা ইলিয়াছ কাঞ্চন বলেন, যানবাহন সব সময়ই নিয়ন্ত্রণ করে চালাতে হবে। নিয়ন্ত্রণহীন গতি মানুষের জীবনের গতিই থামিয়ে দিতে পারে। কারণ অনিয়ন্ত্রিত গাড়ির গতি দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ।তিনি বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে আমার আপনার সকলেরই দায়িত্ব আছে। কেবল এক পক্ষের ওপর দায় চাপালে হয় না। যাত্রী বা পথচারি হিসাবে আমার নিজেরও কিছু দায়িত্ব আছে। আমি আমার দায়িত্ব পালন করলেও দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমবে। ইলিয়াছ কাঞ্চন বলেন, আমাদের সকলকে সব জায়গায় নৈতিকতার পরিচয় দিতে হবে। আমি আমার জায়গায় নৈতিকতা প্রতিষ্ঠা করলে অনেক সমস্যাই সমাধান হয়ে যায়। সড়ক দুর্ঘটনাও একটি সমস্যা। আমি নিজে সচেতন, দায়িত্বশীল ও নৈতিকতার পরিচয় দিলে দুর্ঘটনা কমবে।