গাইবান্ধা ও নাটোরে আলীগের প্রার্থীর রাড়িতে হামলা,সিরাজগঞ্জ-৫ এ নেতাকর্মীদের একযোগে পদত্যাগ

প্রকাশ:| শনিবার, ৩০ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ০৭:০০ অপরাহ্ণ

গাইবান্ধা ও নাটোরেগাইবান্ধা ও নাটোরে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীর রাড়িতে হামলা করেছে আবরোধকারীরা। আজ সকালে আলাদা আলাদা সময়ে এসব হামলা হয়।

উত্তরাঞ্চল প্রতিনিধি জানান, গাইবান্ধার পলাশবাড়িতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীকে অবরুদ্ধ এবং নির্বাচন অফিসে আগুন দিয়েছে বিএনপি-জামায়াত কর্মীরা। পরে পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে প্রার্থীকে উদ্ধার করে। পলাশবাড়ি থানার ওসি নাসির উদ্দিন জানান, গাইবান্ধা-৩ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ডা. ইউনুস আলী সরকার তার কয়েকজন লোক নিয়ে ওই এলাকায় অবস্থিত অধ্যাপক কালিদাসের বাড়িতে আসেন। কিছুক্ষণ পর তিনি ওই বাড়ি থেকে বের হয়ে গেলে দৃবৃত্তরা কালিদাসের বাড়িতে ককটেল ছুড়ে মারে।

পরে ওই প্রার্থী সাবেক এমপি ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি তোফাজ্জল হোসেনের বাড়িতে যান। সেখানেও অবরোধকারীরা তার বাড়ির সামনে রাখা একটি মটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগ করে এবং ১ টি ককটেলের বিস্করণ ঘটায়। পুলিশ সেখান থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ডা. ইউসুস আলীকে পুলিশের গাড়িতে করে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। পরে বিএনপি-জামায়াতের কর্মীরা পলাশবাড়িতে সাথী সিনেমা হলের সামনে রাস্তায় বেডিকেড দেয়। পুলিশ ঘটনা স্থলে গেলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এসময় ১১ টি ককটেলেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। পরিস্থিতি সামাল দিয়ে পুলিশ ৩ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোঁড়ে।

নাটোর প্রতিনিধি জানান, নাটোর-পাবনা মহাসড়কের লালপুরের দাইরপাড়া এলাকায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রাপ্ত পাবনার ঈশ্বরদী আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শামসুর রহমান শরিফ ডিলুর গাড়ি বহরে হামলা করেছে অবরোধকারীরা। তবে হামলায় গাড়ি ভাংচুর হয়নি জানিয়ে ডিলু বলেছেন, বোম ফাটিয়ে ও গাছের গুড়ি ফেলে তারা পালিয়েছে। এদিকে একই সময় সদর উপজেলার হয়বতপুরে ৪/৫টি পরিবহনে ভাংচুর করে অবরোধকারীরা। পুলিশ ও র‌্যাবের পাহারায় গাড়ি পার করার সময় বড়াইগ্রামের ধানাইদহ বাজারে ১০/১২টি গাড়ি ভাংচুর করে বিক্ষুদ্ধরা।
প্রত্যক্ষদর্শিরা ও পুলিশ জানায় , শনিবার দুপুরের দিকে পাবনার ঈশ্বরদী আসনের মনোনয়ন প্রাপ্ত শামসুর রহমান শরিফ ডিলু গাড়ি বহর নিয়ে ঢাকা থেকে তার নিজ এলাকায় যাচ্ছিলেন। পথিমথ্যে নাটোর-পাবনা মহাসড়কের দিয়ারপাড়া এলাকায় পৌছলে অবরোধকারীরা তার বহরে হামলা করে এবং বহরে থাকা গাড়িতে হামলা করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এ সময় অবরোধকারীদের ধাওয়ায় পুলিশ পিছু হটে। পরে পুলিশ অতিরিক্ত ফোর্স নিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। পরে পুলিশ পাহারায় তিনি ওই এলাকা ত্যাগ করেন। এ ঘটনার পর এলাকায় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

অন্যদিকে সিরাজগঞ্জ-৫ এ নেতাকর্মীদের একযোগে পদত্যাগ। সিরাজগঞ্জ-৫ (বেলকুচি-চৌহালী) আসনে সদ্য বিদায়ী মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিশ্বাসকে আওয়ামী লীগ থেকে মনোয়ন না দেয়ায় এনায়েতপুর থানাসহ বেলকুচি, চৌহালী উপজেলার আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা একযোগে পদত্যাগ করে শনিবার দুপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। এক পর্যায়ে তারা এনায়েতপুর-সিরাজগঞ্জ সড়ক অবরোধ করে। এই আসনের মনোনয়ন পুনর্বিবেচনা করার দাবি করেছে। তারা মজিদ মন্ডলের মনোনয়ন বাতিল করে আব্দুল লতিফ বিশ্বাসকে দলীয় মনোনয়নের ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত অবরোধ অব্যহত রাখার ঘোষণা দেন। এ ছাড়াও এনায়েতপুর থানা আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রাপ্ত আব্দুল মজিদ মন্ডলের কুশপুত্তলিকা দাহ করেছে। একই সঙ্গে তারা ওই সংসদীয় এলাকায় আব্দুল মজিদ মন্ডলকে অবঞ্চিত ঘোষণা করেছে। এর আগে শুক্রবার রাতে মনোনয়নকে কেন্দ্র করে বিক্ষুদ্ধ বেলকুচি ও চৌহালী উপজেলা সহ এনায়েতপুর থানা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা একযোগে পদত্যাগের ঘোষণা দেন।


আরোও সংবাদ