গরিবের ‘এমআরআই’ বিনামূল্যে হবে নতুন মেশিনে

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ১০:১৩ অপরাহ্ণ

গরিব রোগীদের বিনামূল্যে ‘এমআরআই’ করা হবে ১০ কোটি টাকা দামের জাপানি ‘হিটাচি ১.৫ টেসলা’ মেশিনটিতে। এর জন্য তাদের ভর্তি হতে হবে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে।

দীর্ঘ তিন বছর পর চমেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এমআরআই সেবা পুনরায় চালু করতে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে উচ্চক্ষমতার ম্যাগনেটিং রিজোনেন্স ইমেজিং বা এমআরআই মেশিনটি বসানোর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। মূল ভবনের তৃতীয় তলার রেডিওলজি অ্যান্ড ইমেজিং বিভাগ থেকে নিয়ন্ত্রিত হবে জরুরি বিভাগের পাশের নতুন কার্ডিওলজি ভবনের নিচতলায় বসানো এমআরআই মেশিনটি।

চমেক সূত্রে জানা গেছে, ২০০৬ সালের ২৯ এপ্রিল চমেকের সিটি স্ক্যান, এমআরআই মেশিনের উদ্বোধন হয়েছিল। ২০১৪ সালের শেষদিকে দুটি মেশিনই কার্যত অচল হয়ে পড়ে। এরপর থেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে লেখালেখি ও বিএমএ নেতাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে নতুন মেশিনটি বরাদ্দ দেওয়া হয়। এমআরআই মেশিন বিকল থাকার সুযোগে বেশ কিছু বেসরকারি রোগ নিরূপণকারী প্রতিষ্ঠান দামি দামি মেশিন বসিয়ে রোগীদের উচ্চমূল্যে এ পরীক্ষাগুলো করাতে থাকে। চট্টগ্রামে তিনটি প্রতিষ্ঠানে ‘৩ টেসলা’ এমআরআই মেশিনও রয়েছে। আগে চমেকে যে এমআরআই মেশিন ছিল তা ‘হিটাচি দশমিক ৩ টেসলা’। সে তুলনায় নতুন মেশিনটি ৫ গুণ বেশি ক্ষমতার।

 

চমেকের রেডিওলজি অ্যান্ড ইমেজিং বিভাগের প্রধান, সহযোগী অধ্যাপক সুভাষ মজুমদার  বলেন, এমআরআই মেশিন নষ্ট থাকায় অনেক গরিব রোগীকে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। প্রায় তিন বছর পর আমরা আবার এমআরআই সেবা দিতে যাচ্ছি। আমরা চমেকের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ভর্তি রোগীদের চিকিৎসকদের প্রস্তাবনা অনুযাযী বিনামূল্যে এমআরআই সেবা দেব। এ ছাড়া সচ্ছল রোগীদের ক্ষেত্রে ৩-৪ হাজার টাকায় এমআরআই সেবা দেব।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমাদের এমআরআই মেশিন ইনস্টলেশনের কাজ প্রায় শেষ। ফিল্ম কেনার জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। আশা করছি সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন নতুন মেশিনটির উদ্বোধন করবেন।