গণজাগরণ মঞ্চের আনন্দ মিছিল

প্রকাশ:| বুধবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি , ২০১৫ সময় ০৭:৫২ অপরাহ্ণ

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতের নায়েবে আমির আব্দুস সুবহানকে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দেয়ায় চট্টগ্রামে আনন্দ মিছিল করেছে গণজাগরণ মঞ্চ।

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রামের গণজাগরণ মঞ্চের সদস্য সচিব ডা.চন্দন দাশ ও সমন্বয়ক শরীফ চৌহানের নেতৃত্বে নগরীর চেরাগির মোড় থেকে মিছিল বের হয়।

মিছিলটি আন্দরকিল্লা, জামালখান, মোমিনরোড, প্রেসক্লাব হয়ে আবারও চেরাগির মোড়ে এসে শেষ হয়।

মিছিলে মুক্তিযোদ্ধা ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অমল কান্তি নাথ, আবৃত্তিশিল্পী পঞ্চানন চৌধুরী, উদীচী চট্টগ্রাম জেলা সংসদের সহ সভাপতি সুনীল ধর, প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের সভাপতি রাশেদ হাসান, সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী তরুণ উদ্যোগের যুগ্ম আহ্বায়ক প্রীতম দাশ, সাংস্কৃতিক সংগঠক অনুপ বিশ্বাস ও খোরশেদ আলম, সংস্কৃতিকর্মী আলাউদ্দিন খোকন, জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি শিমুল বৈঞ্চব, অমর-সাত্তার স্মৃতি পাঠাগারের সভাপতি অমিতাভ সেন, শিক্ষিকা সালমা জাহান মিলি সহ বিভিন্ন প্রগতিশীল রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

মিছিল শেষে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠকরা বলেন, ট্রাইব্যুনালে একের পর এক যুদ্ধাপরাধীদের যখন শাস্তি হচ্ছে তখন জামায়াত-শিবির তাদের বাঁচাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তারা একদিকে এই ফাঁসির রায়ে বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়ে আদালতকে চ্যালেঞ্জ করছে। অন্যদিকে আন্দোলনের নামে ককটেল-পেট্রলবোমা মেরে যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষার চেষ্টা করছে। কিন্তু নাশকতা-সহিংসতা করে জামায়াত-শিবির যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে পারবেনা।

সংগঠকরা সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘যাদের ফাঁসির রায় হয়েছে সেই রায় অবিলম্বে কার্যকর করুন। যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচিয়ে রেখে তাদের পুষবেন না। বাঁচিয়ে রাখলে তারা বিষাক্ত সাপ হয়ে আপনাদের ছোবল মারবে, পুরো জাতিকে দংশন করবে। অবিলম্বে জামায়াত-শিবিরকে নিষিদ্ধ করুন।’

গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠকরা জামায়াত নেতা কামারুজ্জামানের ফাঁসির পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেন।


আরোও সংবাদ