খাল দখলের বিরুদ্ধে অভিযানে নামছে সিডিএ

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি , ২০১৫ সময় ১০:১৮ অপরাহ্ণ

>>প্রেস রিলিজ::মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১ টা। চকবাজার ধনিরপুল এলাকায় হঠাৎ উপস্থিত চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম। উদ্দেশ্য চাক্তাই খালের অবস্থা পর্যবেক্ষণ করা। দেখা গেল, ধনিয়ারপুল এলাকায় চাক্তাই খালে অনেকটাই বর্জ্যে ভরাট হয়ে গেছে। খাল তো নয়, যেন আবর্জনার ভাগাড়। আবর্জনার প্রলেপে গজিয়েছে ঘাস। গৃহস্থালি বর্জ্য, কাঁচা বাজারের আবর্জনাসহ নানা আবর্জনায় ভরাট হয়ে গেছে খাল। খালের অনেকটাই দখলদারদের দখলে চলে গেছে। অনেকে আবার খাল দখল করে গড়ে তোলেছে স্থাপনাও। এ অবস্থার প্রেক্ষিতে খালখেকোদের বিরুদ্ধে নিয়মিত সিডিএ অভিযান পরিচালনা করবে বলে ঘোষণা দেন আবদুচ ছালাম।
জলাবদ্ধতা মহানগরীর দীর্ঘদিনের প্রধান সমস্যা। চট্টগ্রামবাসীকে জলাবদ্ধতার অভিশাপ হতে মুক্তি দিতে করণীয় নির্ধারণ করার জন্য আবদুচ ছালাম শহরের বিভিন্ন জলাবদ্ধতা প্রবণ এলাকা (ওয়ার্ড ভিত্তিক) পরিদর্শনের সিদ্ধান্তের কথা জানান। দখলসহ জনগণের অসচেতনতা মূলক কার্যক্রম সমূহ সরজমিনে পর্যবেক্ষণ করেন। তিনি জলাবদ্ধতার জন্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ও সিডিএ এবং জনগণের অসচেতনতাকে দায়ী করেন।
তিনি বলেন, জনগণের সমর্থন পেলে জলাবদ্ধতা নিরসনের এই প্রক্রিয়া প্রতিটি ওয়ার্ডে সম্প্রসারণ করা হবে। মাষ্টার প্ল্যান অনুযায়ী নতুন খাল খনন এবং বিদ্যমান খাল সমূহ যথাসময়ে সংস্কার করা হলে চট্টগ্রাম নগরীতে জলাবদ্ধতা এত প্রকট আকার ধারণ করত না।
আবদুচ ছালাম বলেন, খালগুলো সংরক্ষণের কাজ সিটি করপোরেশনের। তাদের অনুরোধ করবো খালগুলো সংরক্ষণ করতে। আর সিডিএ’র কাজ হচ্ছে নকশা অনুমোদন না নিয়ে খাল দখল করে যারা ভবন নির্মাণ করেছে ভবনগুলো উচ্ছেদ করা। আমরা ইতিমধ্যে চিহ্নিত করেছি। শিগগির উচ্ছেদ অভিযান শুরু হবে।