খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানকে বিচারের মুখোমুখি করতে পারবে-মহিউদ্দিন চৌধুরী

প্রকাশ:| রবিবার, ২ ফেব্রুয়ারি , ২০১৪ সময় ০৯:২৫ অপরাহ্ণ

দশ ট্রাক অস্ত্র আটক ও চোরাচালান মামলার রায়ের পূর্ণাঙ্গ পর্যবেক্ষণ প্রকাশের পর সরকার চাইলে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানকে বিচারের মুখোমুখি করতে পারবে। শুধু তা-ই নয় অভিযোগপত্রে উল্লেখিত আসামিদের বাইরেও তদন্তসাপেক্ষে কাউকে বিচারের আওতায় আনা যাবে।

রোববার দুপুরে দশ ট্রাক অস্ত্র মামলায় রায় নিয়ে নগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়া জানাতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও চট্টগ্রাম মহানগর পিপি অ্যাডভোকেট কামাল উদ্দিন। নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মহিউদ্দিন চৌধুরীর চশমা হিলের বাসায় এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সম্মেলনে কামাল উদ্দিন বলেন, ‘এই মামলায় চার্জশিটভুক্ত আসামিদের মধ্যে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দিয়েছেন আদালত। এখন চট্টগ্রামের আদালতে এই মামলার আর কোনো কাজ নেই। তবে সরকার চাইলে আদালতের পর্যবেক্ষণ পূর্ণাঙ্গ প্রকাশিত হওয়ার পর আসামির বাইরে যাদের নাম এসেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘ইতোমধ্যে বিভিন্ন জনের সাক্ষ্যে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও হওয়া ভবনের কর্ণধার তারেক রহমানের নাম বারবার উঠে এসেছে। সরকার যদি মনে করে এই মামলায় তাদেরকে বিচারের আওতায় আনা দরকার, তাহলে তদন্ত করে তাদের বিচারের মুখোমুখি করতে পারবে।’

সংবাদ সম্মেলনে নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন।

উল্লেখ্য, গত ৩০ জানুয়ারি দশ ট্রাক অস্ত্র মামলায় রায়ের পর্যবেক্ষণে আদালত বলেন, ২০০৪ সালের ২ এপ্রিল চট্টগ্রামের সিইউএফএল জেটি ঘাটে দশ ট্রাক অস্ত্র জব্দের পর এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা বিষয়টি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে জানালেও তিনি নীরব ছিলেন। এছাড়া বিভিন্নজনের জবাববন্দির ভিত্তিতে গোয়েন্দা সংস্থা ডিজিএফআই, এনএসআইয়ের শীর্ষ কর্মকর্তাদের জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এর সঙ্গে যোগাযোগ ছিল পাকিস্তানি সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের। আর এসব অস্ত্র আনা হয়েছিল ভারতের আসাম রাজ্যের বিছিন্নতাবাদী সংগঠন উলফার জন্য।