খালেদার জনসভায় বাধা এলে ওই দিনই সরকার পতনে কর্মসূচি

প্রকাশ:| রবিবার, ২১ ডিসেম্বর , ২০১৪ সময় ১০:৪৬ অপরাহ্ণ

আগামী ২৭ ডিসেম্বর গাজীপুরে অনুষ্ঠেয় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জনসভায় কোনো রকমের বাধা এলে ওই দিনই সরকার পতনের চূড়ান্ত কর্মসূচি ঘোষণার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা ২০ দলীয় জোট।
খালেদার জনসভায় বাধা এলে
খালেদা জিয়ার জনসভাস্থলে একইসময়ে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ সমাবেশ করার ঘোষণায় রোববার (২১ ডিসেম্বর) রাতে গাজীপুর ২০ দলীয় জোটের এক সভা শেষে চূড়ান্ত কর্মসূচি দেওয়ার এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

গাজীপুর মহানগরে জেলা বিএনপির এক যুগ্ম-সম্পাদকের বাসায় অনুষ্ঠিত সভায় যে কোনো মূল্যে ওই সমাবেশ সফল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। জনসভায় বাধা এলে সরকার পতনের চূড়ান্ত কর্মসূচি গাজীপুর থেকেই ঘোষণা করা হবে বলে জানায় সভার একটি সূত্র। এই সভার আগে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত আরেকটি বৈঠকেও একই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

যুগ্ম-সম্পাদকের বাসায় অনুষ্ঠিত সভায় অংশ নেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নান, গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক মিলন, সাধারণ সম্পাদক কাজী ছাইয়েদুল আলম বাবুল, গাজীপুর জেলা জামায়াতের আমির আবুল হাসেম, জাতীয় গণতান্ত্রিক পাটির (জাগপা) গাজীপুর জেলা সভাপতি হুমায়ূন কবির প্রমুখ।

সভায় উপস্থিত নাম প্র্রকাশে অনিচ্ছুক একটি দায়িত্বশীল সূত্র বাংলানিউজকে জানায়, সরকারি অনুমতি নিয়ে জনসভার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। এখন জনসভা বানচালের জন্য আওয়ামী লীগ ছাত্রলীগকে কাজে লাগাচ্ছে।

সূত্র আরও জানায়, যে কোনো মূল্যে ২৭ ডিসেম্বরের জনসভা অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কোনো ধরনের বাধা দিলে গাজীপুর থেকেই সরকারবিরোধী আন্দোলনের ঘোষণা আসবে।

২৩ ডিসেম্বর ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে খালেদা জিয়ার জনসভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু একইদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হ‍াসিনার গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে কারা সপ্তাহ উদ্বোধনের সূচি নির্ধারিত হওয়ায় বিএনপি চেয়ারপারসনের জনসভার তারিখ পরিবর্তন হয়ে ২৭ ডিসেম্বর ঠিক হয়।

তবে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কটূক্তির প্রতিবাদে একইসময়ে ভাওয়াল বদলে আলম কলেজ মাঠেই বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেয় গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগ।

বিএনপি ও ক্ষমতাসীনদের ছাত্র সংগঠনের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে গাজীপুরের রাজনৈতিক অঙ্গন।