খাগড়াছড়িতে ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়ে অভিযান শুরু

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৬ জুন , ২০১৭ সময় ১০:৫৮ অপরাহ্ণ

 

শংকর চৌধুরী,খাগড়াছড়ি॥
টানা বর্ষণে পাহাড় ধসের শঙ্কায় খাগড়াছড়িতে পাহাড়ের পাদদেশ ও ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের অন্নত্র সরিয়ে নিতে অভিযান শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। শুক্রবার ১৬ জুন সকাল থেকে জেলা সদরের বিভিন্ন এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসকারীদের নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে আসে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা।

জেলা সদরের শালবন এলাকায় অভিযান চালানোর সময় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ইউএনও) এলিশ শরমিন জানান, টানা বৃষ্টি ও প্রতি বছর বর্ষায় পাহাড় ধস হওয়ার শঙ্কা থাকায় বর্ষার শুরু থেকে খাগড়াছড়িতে পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাসকারীদের সরিয়ে আনতে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন তৎপর রয়েছে। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় জেলা সদরের কলাবাগান, ন্যান্সিবাজার, শালবন, হরিনাথ পাড়া, আঠার পরিবার এলাকায় ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরিয়ে শালবন এলাকার জেলা প্রশাসনের আশ্রয়কেন্দ্রে আনা হয়েছে।

খাগড়াছড়ি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) তারেক মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান জানান, শুক্রবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অন্তত ৩০টি পরিবারকে শালবন এলাকার আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়েছে।

এদিকে, শহরের বেশ কয়েকটি স্থানে পাহাড় কেটে, পাহাড়ের পাদদেশে অপরিকল্পিতভাবে বাড়িঘর নির্মাণ করা হলেও তা বন্ধে প্রশাসন কোন পদক্ষেপ না নেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবীদ সমিতি’র (বেলা) নেটওয়ার্ক সদস্য আবু দাউদ। পাহাড় কাটা বন্ধে ২০১১ সালে বেলা প্রশাসনকে নোটিশ দিলেও প্রশাসন এর কোন কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

এবিষয়ে জেলা প্রশাসক মো: রাশেদুল ইসলাম বলেন, খাগড়াছড়ি জেলা সদরসহ প্রতিটি উপজেলায় অভিযান চালিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরিয়ে আনতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি পাহাড় খেকোদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের জিরো ট্যালেরেন্স থাকবে।