খাগরিয়া বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ে পুরষ্কার বিতরণ

প্রকাশ:| সোমবার, ২ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ১০:৫৮ অপরাহ্ণ

খাগরিয়া বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে গঠিত ইউনিটি ব্যাচ-২০১৬ কর্তৃক আয়োজিত এস.এস.সি-১৭ইং কৃর্তি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ও কুইজ প্রতিযোগীতা পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান খাগরিয়া বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জনাব মোঃ ইউছুফ এর সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা ও পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুব লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সদস্য, মিডিয়া ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব জাহেদুর রহমান সোহেল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, খাগরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু তাহের মেম্বার, প্রধান বক্তা ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুব লীগের সদস্য হাসান মাহমুদ, বক্তব্য রাখেন অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক নুরুল আবছার, আজিজুল হক, খাগরিয়া ইউনিয়ন যুব লীগের সভাপতি হারুনুর রশিদ খোকা, সাধারন সম্পাদক আলী নুর মানিক, খাগরিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ ফোরকান, মোঃ সাইফুল ইসলাম রুবেল, সংগঠনের সদস্য সৈকত সুশীল রবিন, রিপাত হাসান, মোঃ আদিল, শাহরিয়ার মাহামুদ তৌহিদ, তৌহিদুল ইসলাম, মোঃ বোরহান প্রমূখ।
প্রধান অতিথি জাহেদুর রহমান সোহেল বলেন, শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড, যে জাতি যত বেশি শিক্ষত, সেই জাতি তত বেশি উন্নত। প্রকৃত দেশপ্রেম ও সংস্কৃতি ছাড়া যে শিক্ষা অর্জন হয় তা কখনো প্রকৃত শিক্ষা বলা যাবে না। সেই শিক্ষায় আজ জঙ্গীবাদ সৃষ্টি করছে। তা দেশ ও জাতির জন্য ভয়ানক। আমরা একটি স্বাধীন দেশ পেয়েছি। আমাদের একটি পতাকা আছে। নিজস্ব একটি সংস্কৃতি আছে। এগুলোকে ধ্বংস করতে মেধাবীদের জঙ্গী বানানো হচ্ছে। তাই শুধুমাত্র জিপিএ-৫ এর পিছনে দৌড়াদৌড়ি করলে হবে না। প্রকৃত শিক্ষা অর্জন করতে হবে। নিজের জন্য এবং দেশের জন্য নিজেদের গড়ে তুলতে হবে। আমাদের শিক্ষার ঐতিহ্য অনেক পুরানো। এক সময়ে এদেশে শিক্ষা অর্জনের জন্য বিদেশ থেকে ছাত্র ছাত্রীরা আসতো। আর এখন আমাদের দেশের ছাত্র ছাত্রীরা বিদেশে গিয়ে পড়াশুনা করছে। এটা আমাদের জন্য দুর্ভাগ্যজনক। দেশের প্রতি নিজের সংস্কৃতির প্রতি কোন মায়া না থাকার কারণে জঙ্গীবাদের বিস্তার ঘটছে। প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ছাত্রছাত্রীরা জঙ্গীবাদে লিপ্ত হচ্ছে। প্রকৃত মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক, ধর্ম নিরপেক্ষ দেশ ও জাতি গড়তে পারলে এদেশ জঙ্গীবাদ মুক্ত হবে। পরে বিভিন্ন পর্যায়ের কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্রেষ্ট ও সনদ এবং মুক্তিযুদ্ধের বই বিতরণ করা হয়।


আরোও সংবাদ