ক্লিন শেভ, নতুন সেন্ডেল দেখে রাকিবকে সনাক্ত করে পুলিশ

প্রকাশ:| রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি , ২০১৪ সময় ০৮:৩২ অপরাহ্ণ

রাকিবত্রিশালে পুলিশের হাত ফসকে যাওয়া জঙ্গির একজন রাকিব হাসান। টঙ্গাইলের সখিপুর এলাকা দিয়ে পালাচ্ছিলেন। বেলা দুইটার দিকে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে পালানোর সময় তার সঙ্গে ছিল রাসেল নামে আরও এক যুবক। পথে সিএনজি তল্লাশি করেন সখিপুর থানার এসআই শ্যামল দত্ত। এ সময় সদ্য শেভ করা রাকিবের মুখে কয়েক যায়গায় কেটে যাওয়ার চিহ্ন দেখতে পান এসআই। তার ঠোটের নিচে থুতনি দিকে অল্প কিছু দাঁড়ি ছিল। তাড়াহুড়ার কারনে ঠিকমতো দাঁড়ি কাটতে পারেননি এমনটাই সন্দেহ করেন এসআই শ্যামল। পরে রাকিবকে আরও ভালো করে তল্লাশি করেন তিনি। এ সময় তিনি রাকিব হাসানের হাতে ও পায়ে ডান্ডাবেড়ির দাগ দেখতে পান। রাকিবের পায়ে নতুন স্যান্ডেল ছিল। এসব দেখেই তাকে গ্রেপ্তার করেন তিনি। পরে তাকে সখিপুর থানায় নেয়া হয়। কিন্তু সেখানে রাকিব তার পরিচয় গোপন করার চেষ্টা করেন। তিনি দাবি করেন তার নাম রাসেল। তবে পুলিশ তাঁকে শনাক্ত করে। কারা সূত্র অনুসারে রাকিব হাসানের পুরো নাম রাকিব হাসান ওরফে হাফেজ মাহমুদ ওরফে রাসেল।

ময়মনসিংহের ত্রিশালে প্রিজন ভ্যানে হামলা চালিয়ে ছিনতাই করে নিয়ে যাওয়া আসামিদের মধ্যে রাকিব হাসান (৩৫) নামে একজন ধরা পড়েছেন। রোববার বিকালে টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পুলিশের সদর দপ্তর সূত্রে এ খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। রাকিবের বাড়ি জামালপুরের মেলান্দহের বংশীবেল এলাকায়। তিনি একটি মামলায় মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামী। তাঁর বিরুদ্ধে আরও প্রায় ৩০টি মামলা আছে। এ ছাড়া একটি মামলায় তাঁর যাবজ্জীবন এবং একটি মামলায় তাঁর ১৪ বছরের সাজা হয়েছে।