কোম্পানীগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সমর্থকদের সংঘর্ষে দুজন নিহত

প্রকাশ:| সোমবার, ১১ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ১১:০৭ অপরাহ্ণ

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে পাথর ব্যবসার নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সমর্থকদের সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ২৫ জন। আজ সোমবার রাতে কোম্পানীগঞ্জ সদর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।নিহত লাশ
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, পাথর ব্যবসার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আপ্তাব আলী ওরফে কালা মিয়ার পক্ষের লোকজনের সঙ্গে পাথর ব্যবসায়ী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল আলীর পক্ষের লোকজনের বিরোধ ছিল। আজ সন্ধ্যার পর একটি ট্রাকে পাথর উত্তোলন নিয়ে কোম্পানীগঞ্জ সদরের হবিনগরের কাছে দুই পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে আপ্তাব আলী ও আবদুল আলীর উপস্থিতিতে দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় আধা ঘণ্টা ধরে চলা সংঘর্ষে ব্যাপক গুলিবর্ষণ হয়। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে আবদুল আলীর পক্ষের ফরমুজ আলী (২৮) মারা যান। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহত আমিন উদ্দিন (৪৫) নামের আরেকজন হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান। তাঁরা দুজনই পাথরশ্রমিক এবং আবদুল আলীর পক্ষের লোক বলে জানা গেছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
রাতে যোগাযোগ করলে ঘটনাস্থলে অবস্থানকারী সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইব্রাহিম খান প্রথম আলো ডটকমকে জানান, দুই পক্ষের সংঘর্ষ চলাকালে গুলিবিদ্ধ হয়ে ফরমুজ ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহত অবস্থায় আমিন উদ্দিন মারা যান। ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় আরও ১০-১২ জনকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তিনি জানান, গুলিবিনিময় এবং কী ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে তার খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।
কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালেহ উদ্দিন প্রথম আলো ডটকমকে বলেন, সংঘর্ষস্থলে পুলিশ অবস্থান করছে।
এ ব্যাপারে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলী আমজদ প্রথম আলো ডটকমকে বলেন, ‘এটা রাজনৈতিক কোনো ঘটনা নয়। দুজনই একই এলাকার এবং তাঁদের মধ্যে পাথর ব্যবসার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধ থেকে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।’


আরোও সংবাদ