কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মেয়র

প্রকাশ:| রবিবার, ৩১ আগস্ট , ২০১৪ সময় ১০:১৪ অপরাহ্ণ

Mayorচট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহম্মদ মনজুর আলম বলেছেন, কারিগরি শিক্ষা অর্জনের মাধ্যমে আত্মনির্ভরশীল হওয়ার সুযোগ রয়েছে। তিনি বলেন, বিবিধ টেকনোলজিতে পারদর্শিতা অর্জন করে দেশ ও বিদেশে কর্মে আত্মনিয়োগ করা সম্ভব।

মেয়র বলেন, বিদ্যুৎ, যান্ত্রিক, কম্পিউটার, এ সি ইত্যাদি ট্রেড এ পারদর্শিতা অর্জন করা সম্ভব হলে কোন শিক্ষার্থীকে বেকার থাকতে হবে না। মেয়র ইমপেক কলেজ অব টেকনোলজিতে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের ভাল ফলাফলের জন্য শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীদের অভিনন্দন জানান। ইমপেক কলেজ অব টেকনোলজির ১৩তম বর্ষে পদার্পন এবং ২০১৪খ্রি. ফাইনাল পরীক্ষায় সি.জি.পি.এ প্রাপ্তদের সংবর্ধনা প্রদান, বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষনে সিটি মেয়র এসব কথা বলেন।

৩০আগষ্ট ২০১৪খ্রি. শনিবার সন্ধ্যায় স্থানীয় একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইমপেক কলেজ অব টেকনোলজির চেয়ারম্যান প্রকৌশলী নূর আহমেদ আবেদীন। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রনিক্স এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মেরাজ আহমেদ জাহেদী। আলোচনা করেন, ইমপেক কলেজ অব টেকনোলজির প্রধান নির্বাহী কামরুল হুদা, অধ্যক্ষ ফারুক আহমেদ , এম.এ বারী, শরীফ আহমেদ জাহেদ ও নুরুল করিম সহ অন্যরা। উল্লেখ্য যে, ইমপেক কলেজ অব টেকনোজির ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্র মো. আনোয়ার হোসেন ও কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্রী চাঁদ সুলতানা মুন্নি চট্টগ্রামের সকল সরকারী-বেসরকারী পলিটেকনিকের মধ্যে সর্বোচ্চ সি.জি.পি.এ পেয়েছেন।

এই প্রতিষ্ঠানটি ২০০২খ্রি. থেকে যাত্রা শুরু করে দেশের বহু শিক্ষার্থী কারিগরি শিক্ষা প্রদানের মাধ্যমে দেশের শিল্প কারখানাকে উন্নয়নে সহায়তা করছে। বর্তমানে এ প্রতিষ্ঠানে বহু শিক্ষার্থী দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও শিল্প কারখানায় দক্ষতার সাথে কর্মরত আছেন। বর্তমানে এ প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ইলেট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স বিভাগে ২ শত এর বেশি শিক্ষার্থী ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষা গ্রহন করছে। পরে মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম কৃতি শিক্ষার্থী, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরষ্কার তুলে দেন।