কুয়েতকে একপ্রকার উড়িয়েই দিয়েছে বাংলাদেশ

প্রকাশ:| বুধবার, ১ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১১:৩১ অপরাহ্ণ

পুঁচকে কুয়েতকে একপ্রকার উড়িয়েই দিয়েছে বাংলাদেশ। বুধবার এশিয়ান গেমস ক্রিকেটে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ২০৩ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়েছে মাশরাফি বাহিনী। এবার সেমি ফাইনাল হার্ডলের সামনে টাইগাররা। বৃহস্পতিবার শেষ চারের লড়াইয়ে সাকিব আল হাসান-তামিম ইকবালদের প্রতিপক্ষ শক্তিশালী শ্রীলঙ্কা।

আগামীকাল ভারত মহাসাগর পাড়ের দেশটিকে হারাতে পারলেই কেবল ফাইনালে নাম লেখাবে টাইগাররা। আর বেঁচে থাকবে তাদের স্বর্ণ জয়ের স্বপ্ন। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় সকাল ১১টায় শুরু হবে ম্যাচটি। অবশ্য তার আগে বুধবারে কুয়েতের বিপক্ষে ভালোই অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে প্রতিপক্ষের জন্য ত্রাস হিসেবে আর্বিভূত হয়েছিলেন মোহাম্মদ মিঠুন, সাব্বির রহমান ও তামিম ইকবালরা। আর বোলিংয়েও ভয়ংকর দেখিয়েছে আরাফাত সানি-মাহমুদুল্লাহ রিয়াদদের।

এদিন সেমিফাইনাল ও কুয়েতের ম্যাচ নিয়ে অধিনায়ক মাশরাফি মর্তুজা বলেন, ‘কুয়েতের বিপক্ষে ম্যাচটিতে আমাদের ব্যাটিং অনুশীলন করাই মূল লক্ষ্য ছিল। কিন্তু ৯ উইকেট হারাতে হবে এটা অবশ্য ভাবিনি আমরা। ম্যাচে আমরা কম উইকেট হারালে ভালো হতো। বোলারদেরও বোলিং ঝালাই করে নেওয়া হয়েছে এই ম্যাচে।’ প্রতিপক্ষের ২১ রানে গুটিয়ে যাওয়া নিয়ে নড়াইল এক্সপ্রেস বলেছেন, ‘কুয়েত ক্রিকেটে এসেছে বেশি দিন হয়নি। মাত্র ৭ মাস হয়েছে যে ওরা খেলা শুরু করেছে। এর পরও তাদের টিম স্পিরিট দেখে ভালো লেগেছে। ওদের দলের সবার মধ্যে সমঝোতা আছে। ভবিষ্যতে দলটি অনেক দূর এগুতে পারবে বলে মনে হচ্ছে।’

আন্তর্জাতিক ম্যাচগুলোতে যে বল দিয়ে খেলা হয়। এশিয়ান গেমসে সেই কোকাবুড়া বলে খেলা হচ্ছে না। এ বিষয়ে মাশরাফি বলেন, ‘এশিয়ান গেমসে বলটা একটু বড়। হাত থেকে বেরিয়ে যায়। তবে এই বল দিয়েই সবাইকে বোলিং করতে হবে। তাই এটা তেমন কোনো সমস্যা নয়।’ আবারও অধিনায়কের দায়িত্ব পেয়েছেন। এটা কি বাড়তি কোনো চাপ সৃষ্টি করবে? এই প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বলেন, ‘আবার যখন দায়িত্ব পেয়েছি। আশা করছি, দায়িত্ব ভালভাবে পালন করব। অধিনায়কের দায়িত্ব পেলে স্বাভাবিকভাবেই চাপটা একটু বেশি থাকে। এখান থেকে ভালো কিছু বের করে আনা জরুরি। সাকিব সহ-অধিনায়ক হিসেবে রয়েছে। তাই কোনো সমস্যা হবে না।’

সেমিফাইনালে প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে বাংলাদেশের অধিনায়ক বলেন,‘এই উইকেটে স্পিন খেলা কঠিন। উইকেট অনেক স্লো। আমাদের বোলিংয়ের মূল শক্তি স্পিনে। শ্রীলঙ্কার শক্তিও স্পিনে। তাই সমস্যা যদি হয় তাহলে শ্রীলঙ্কারও একই সমস্যা ভোগ করতে হবে।’