কুতুবদিয়ায় স্কুল ছাত্র বলৎকার:আটক-১

প্রকাশ:| শনিবার, ১৬ জানুয়ারি , ২০১৬ সময় ০৯:১৯ অপরাহ্ণ

আটক১২

লিটন কুতুবী
কুতুবদিয়া

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় এক স্কুল ছাত্রকে জোরপূর্বক বলৎকার করেছে স্থানীয় বড়ঘোপ সিনিয়র ফাযিল মাদ্রাসার ৪র্থ শ্রেনির এক কর্মচারী। গত ১৫ জানুয়ারী (শুক্রবার) দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানান, স্থানীয়রা।এসময় স্থানীয় জনতা এ লম্পট কর্মচারীকে হতেনাতে ধরে উত্তম-মধ্যম দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় উত্তর মগডেইল গ্রামের মন্জুর আলমের ছেলে মোঃ আজম (৩০) নামের একজনকে বলৎকারের অপরাধে আটক করা হয়েছে। কুতুবদিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ.এস থোয়াই ঘটনার সত্যতা শিকার করেন। এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে। বড়ঘোপ ইসলামিয়া ফাযিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মোঃ নুরুল আলম জানান, সে দীর্ঘ ৫ বছর ধরে অত্র মাদ্রাসায় দপ্তরীর পদে চাকরি করে আসছে। প্রতিষ্ঠানের নাইট গার্ড মফিজ আলম অসুস্থতার কারণে তার পরিবর্তে বেশ কিছুদিন ধরে মোঃ আজম মাদ্রাসার নিচে নৈশ্যপ্রহরীর জন্য বরাদ্ধকৃত রুমে দায়িত্ব পালন করছে। এ ঘটনায় তাকে মাদরাসা কর্তৃপক্ষ সাময়ীকভাবে প্রতিষ্ঠান থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘটনার দিন মোঃ আজম তার কু-প্রবৃত্তিকে চরিতার্থ করার কু-মানশে (বড়ঘোপ ইসলামীয়া ফাযিল মাদরাসার) মাদরাসার মাঠে বায়তুশশরফ মসজিদে এশারের নামায পড়তে আসা স্থানীয় হাই স্কুল পড়–য়া এক ছাত্রকে (গোপনীয়তার কারণে নাম প্রকাশ করা হয়নি) পুশলিয়ে ডেকে নিয়ে তার ঐ নৈশপ্রহরীর রুমে এনে শারীরিক জুলুম (বলৎকার) করে। এসময় ঐ ছাত্র জ্ঞান হারিয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়লে আজম কৌশলে রুমের বাতি নিভিয়ে দিয়ে বাহিরে তালা ঝুলিয়ে পালিয়ে গিয়ে সাধু সাজার চেষ্টা করে।
স্থানীয় কিছু লোকজন টের পেয়ে ঘটনাস্থলে গেলে ঐ ছাত্রকে উদ্ধার করে কুতুবদিয়া সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে।