কুতুবদিয়ায় পৃথক ঘটনায় আহত ৪

প্রকাশ:| সোমবার, ৫ অক্টোবর , ২০১৫ সময় ০৯:০১ অপরাহ্ণ

সোমবার (৫অক্টোবর) কুতুবদিয়ায় পৃথক পৃথক ঘটনায় মহিলাসহ ৪জন গুরুতর আহত হয়েছে । আহতদের কুতুবদিয়া সরকারি হাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ২ জনের অবস্থা আশংখাজনক দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানাগেছে, কুতুবদিয়া দ্বীপের বড়ঘোপ ইউনিয়নের উত্তর মগডেইল নামক এলাকায় সরকারি রাস্তায় খড় শুকানোকে (ধান গাছের)কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হলে চুরা ও লোহার রড়ের আঘাতে সরওয়ার আলমের পুত্র আলমগীর (৪৫), নুরুল ইসলামের পুত্র আজিজ (২৬)আতিক (৩০) গুরুতর আহত হয়। তাদের মধ্যে আলমগীর ও আজিজের অবস্থা আশংখাজনক দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। প্রতিপক্ষ থেকে আহত হয়েছে একই এলাকার আবদু সত্তারের পুত্র দেলোয়ার(২৮)। এতে উভয় পক্ষের আহত ৪ জনকে প্রত্যক্ষদর্শীরা ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করান। এব্যপারে উভয় পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে আহতদের পরিবারসূত্রে জানা গেছে। এদিকে একই উপজেলার উত্তর ধুরুং ইউনিয়নের আকবর বলীর ঘাট এলাকায় বসত ভিটার দখল করতে আসা দূবৃত্তদের হামলায় গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে রাশেদা বেগম (৪০) নামের এক নারী। তার স্বামী শামশুল আলম জানান, দুই বছর পূর্বে একই এলাকার মুসলেহ উদ্দিনের নিকট থেকে বায়নামা মূলে ক্রয় করে। সে অনুযায়ী শামশুল আলম উক্ত দখলীয় জায়গায় বসত বাড়ি স্থাপন করত ভিঠার চর্তুপাশে গাছপালা রোপন করে দীর্ঘ দুইবছর বসবাস করে আসছিল। হঠাৎ একই এলাকার নুরুল আমিন উক্ত বসতভিঠা ক্রয় করার কথা বলে ঐ ভিঠায় রোপনকৃত গাছপালা কাটতে গেলে রাশেদা বেগম বাধাঁ দিলে দূবৃত্তরা তাকে মারধর করে। এলাকাবাসী খবর পেয়ে আহত অবস্থায় রাশেদা বেগমকে উদ্ধার করে কুতুবদিয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। এব্যপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান আহতের স্বামী শামশুল আলম নিশ্চিত করেন।