কুতুবদিয়ায় এনজিওর বিরুদ্ধে ত্রাণ বিতরণে দূর্নীতির অভিযোগ

প্রকাশ:| শনিবার, ১৯ আগস্ট , ২০১৭ সময় ১০:২৬ অপরাহ্ণ

লিটন কুতুবী, কুতুবদিয়া-কক্সবাজার।

কুতুবদিয়ায় এ্যাড্রা বাংলাদেশ এনজিওর বিরুদ্ধে ত্রাণ বিতরণে দূর্নীতির অভিযোগ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেআলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের কাহারপাড়া ও কিরণ পাড়া এলাকার প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো। সম্প্রতি উপকূলের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড় মোরা’র আঘাতে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের জন্য ত্রাণ সাহায্য নিয়ে কাজ করছে বিভিন্ন এনজিও সংস্থা। তার মধ্যে এ্যাড্রা বাংলাদেশ ও অগ্রযাত্রা নামের দু’টি এনজিও সংস্থার যৌথ প্রচেষ্টায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত প্রকৃত দুস্থ্য পরিবারকে প্রাথমিক পর্যায়ে যাছাই বাচাই করার পরে চূড়ান্ত পর্যায়ে কৌশলগতভাবে স্বজনপ্রীতি ও দূর্নীতির আশ্রয় নিয়ে তাদের বাদ দিয়ে স্বচ্ছল ও ক্ষতিগ্রস্ত নয় এমন পরিবারকে তালিকায় অর্ন্তভুক্ত করেছে বলে অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলন করেছে আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের কিরণপাড়া ও কাহারপাড়া গ্রামের (বেড়িবাঁধ এলাকার) ভুক্তভোগী পরিবারগুলো।
১৯ আগস্ট (শনিবার) কিরন পাড়াস্থ এক ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের উঠানে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীরা বলেন, ঘূর্ণিঝড় মোরা’র আঘাতে লন্ডভন্ড হয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরে খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন-যাপন করছে। ঝড়-বৃষ্টিতে ভিজে , অন্যের ঘরে আশ্রয় নিয়ে অর্ধাহারে অনাহারে জীবন অতিবাহীত হলেও এসব পরিবার মাথা গুজানোর জন্য কোন ব্যবস্থা এখনো করতে পারিনি। বিভিন্ন সময়ে একাধিক এনজিও প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে যাছাই বাচাইয়ের মাধ্যমে উপজেলায় ত্রাণ বিতরণের ব্যবস্থা করলেও রহস্যজনক কারনে এ্যাড্রা বাংলাদেশ নামের ওই এনজিও দূর্ণীতির আশ্রয় নিয়ে আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নসহ বিভিন্ন এলাকায় স্বচ্ছল ও ক্ষতিগ্রস্ত নয় এমন পরিবারকে তালিকাভুক্ত করে ত্রাণের জন্য কার্ড বিতরণ করেছে।
সাংবাদিক সম্মেলনে তারা আরো অভিযোগ করে বলেন, প্রথম তালিকায় প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের নাম অর্ন্তভুক্ত করলেও পরবর্তীতে মোটা অঙ্কের বিনিময়ে ওই তালিকা বাদ দিয়ে দেয়। এমনও প্রমাণ আছে, একই এলাকার পরস্পর আত্মীয় সাতজনকে টিন বিতরনের জন্য কার্ড প্রদান করেছে। এছাড়াও অন্যান্য এনজিও থেকে ত্রাণ (টিন,ঘর ও অন্যান্য উপকরণ) পাওয়া এমন অনেক পরিবারকেও তালিকায় অর্ন্তভুক্ত করেছে এ্যাড্রা বাংলাদেশ এনজিও’র ফিল্ড কর্মীরা।
ওই এলাকায় ঘূর্ণিঝড় মোরা’র আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত গৃহহারা ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর সদস্যদের মধ্যে,খতিজা বেগম, রোকেয়া বেগম, রেজিয়া বেগম, আরিফা খানম, নছিমা আক্তার, মিনোয়ারা বেগম,খাইরুন্নেছা, দিদারুল ইসলাম, নুরুজ্জাহান, বিউটি বেগম, জান্নাতুল ফেরদৌস, হাছিনা বেগম, আনোয়ারা বেগম, হাছিনা বেগম,খালেদা বেগম, জাহেদা বেগম সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে ওই এনজিও’র বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ এনে এসব কথা বলেন। বিষয়টি নিয়ে ২০ আগস্ট কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)বরাবরে লিখিত অভিযোগ করার কথাও জানান তারা। বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ বিতরণের আবেদন জানিয়েছেন এসব ক্ষতিগ্রস্ত পরিবাররের সদস্যরা। ত্রাণ বিতরণে দূর্নীতির অভিযোগের ব্যাপারে এ্যাড্রা বাংলাদেশ এনজিওর কুতুবদিয়ার প্রতিনিধি হ্যান রাইর সাথে কথা হলে তিনি বলেন,আমাদের অগোচরে দূনীর্তি হলে তা খতিয়ে দেখা হবে। এমন অভিযোগ পাওয়া গেলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরোও সংবাদ