কুতুদিয়ায় উত্তরণ বিদ্যানিকেতনের প্রয়োজনীয় কাজপত্র চুরি!

প্রকাশ:| রবিবার, ২৬ জুলাই , ২০১৫ সময় ১১:৩০ অপরাহ্ণ

কুতুবী কুতুবদিয়া,কক্সবাজার।

গতকাল ২৬ জুলাই (রবিবার) দিবাগতরাতে কুতুবদিয়া উপজেলার উত্তর ধুরুং ইউনিয়নের একমাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উত্তরণ বিদ্যানিকেতনের প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের ফাইল চুরির ঘটনা ঘঠেছে। বিদ্যালয়ের তালা ভেঙে আলমিরা তছনছ করে স্টক রেজিষ্ট্রার অনুযায়ী ১৯৯১ সালের জানুয়ারী থেকে ২০১৫ সালের জুলাইয়ের ২৫ তারিখ পর্যন্ত ব্যবহৃত বিদ্যালয়ের কলামনার ক্যাশ বহিঃ, শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ সংক্রান্ত ফাইল, সকল শিক্ষক-কর্মচারীদের সনদের মূল কপি, এমপিও ভূক্তির ফাইল, বিদ্যালয়ের স্বীকৃতির ফাইল,জেএসসি’র সার্টিফিকেট, মার্কসীট, বোর্ডের ৮ম ও ৯ম শ্রেণির রেজিষ্ট্রেশন সংক্রান্ত কাগজ পত্রাদি, জনতা ব্যাংক কুতুবদিয়া শাখার রিজার্ভ ফান্ড ও সাধারণ ফান্ডের চেক বহি, খুটাখালী অগ্রণী ব্যাংকের চেক বহি, বিদ্যালয়ের খতিয়ান ও দলিলসহ বিধি মোতাবেক তৈরি করা সকল ফাইলপত্র চুরি করে নিয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক। এব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবদুল বাতেন বাদি হয়ে ৪জনকে অভিযুক্ত করে কুতুবদিয়া থানায় একটি এজাহার দায়ের করেছেন। এহজাহারের সূত্রমতে জানা যায়, গত ২৩ জুলাই বিদ্যালয়ের ম্যানিজিং কমিটি বিদ্যালয়ের অর্থ আত্মসাৎ, বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগে বিধি মোতাবেক প্রাধান শিক্ষক আহমদ হোসাইনকে চাকুরী থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। কিন্তু প্রধান শিক্ষক আহমদ হোসাইন বিধি মোতাবেক এ বহিষ্কার আদেশের সিদ্ধান্ত মেনে নিতে অস্বীকার করে বিদ্যালয়ের অস্তিত্ব বিনাশ করবে এবং অফিসের রেকর্ডপত্র গায়েব করার হুমকি প্রদান করে। আর সেই রাতেই আহমদ হোসাইন দলবল নিয়ে রাতের আধারে বিদ্যালয়ের তালা ভেঙে অফিসের প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্র চুরি করে নিয়ে যায়। পরদিন সকালে বিদ্যালয়ে এসে বিদ্যালয়ের তালা ভাঙা এবং আলমিরার কাগজপত্র এলামেলো দেখে বিদ্যালয়ের ম্যানিজিং কমিটিকে খবর দিলে বহিষ্কৃত প্রধান শিক্ষক আহমদ হোসাইনই এঘটনা ঘটাতে পারে বলে মনে করেন তারা। তাছাড়া বিদ্যালয়ের দপ্তরী অরুণ চন্দ্র চুরি ঘটনা শিকার করে। এব্যাপারে কুতুবদিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অংসা থোয়াই জানান, চুরির ব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি, অবশ্য এ বিষয়ে তদন্ত চলছে।


আরোও সংবাদ