কিশোরগঞ্জ-৪ ,রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক জয়লাভ করেছেন

প্রকাশ:| বুধবার, ৩ জুলাই , ২০১৩ সময় ১১:২৯ অপরাহ্ণ

কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) আসনের উপনির্বাচনে জয়লাভ করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও রাষ্ট্রপতি rajwanআব্দুল হামিদের পুত্র রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক। ভোট গণনার বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী তিনি পেয়েছেন ৯৯ হাজার ৫৩৩ ভোট।

অপরদিকে তার নিকটতম ও একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সৈয়দ মহিতুল ইসলাম অসীম পেয়েছেন ৫৯ হাজার ২০৬ ভোট।

উল্লেখ্য, ওই আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হামিদ অ্যাডভোকেট রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হওয়ার পর আসনটি শূন্য হয়। উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান রাষ্ট্রপতির পুত্র রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক। তার বিরুদ্ধে ফুটবল প্রতীক নিয়ে দাঁড়ান আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সৈয়দ মহিতুল ইসলাম অসীম। মহিতুল ইসলাম অসীম ছিলেন অষ্টগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক।

তিন উপজেলা নিয়ে গঠিত কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের মোট ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ৭৯ হাজার ৭১৯ জন। ভোটারদের মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ৪১ হাজার ১৬৩ জন এবং নারী ১ লাখ ৩৮ হাজার ৫৫৬ জন।

তিন উপজেলায় মোট ১১৮টি ভোটকেন্দ্রের ৫৪৩টি ভোটকক্ষের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হয়। এর মধ্যে ইটনা উপজেলার মোট ৯টি ইউনিয়নের ৪৩টি ভোটকেন্দ্রে ভোটকক্ষের সংখ্যা ছিলো ২১০টি, মিঠামইন উপজেলার মোট ৭টি ইউনিয়নের ৩৭টি ভোটকেন্দ্রে ভোটকক্ষের সংখ্যা ছিলো ১৪৬টি এবং অষ্টগ্রাম উপজেলার মোট ৮টি ইউনিয়নের ৩৮টি ভোটকেন্দ্রে ভোটকক্ষের সংখ্যা ছিলো ১৮৭টি।

ভোট গ্রহণের জন্য ইটনা উপজেলার ৪৩টি ভোটকেন্দ্রের জন্য ৪৩ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ২১০ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ৪২০ জন পোলিং অফিসার, মিঠামইন উপজেলার ৩৭টি ভোটকেন্দ্রে ৩৭ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ১৪৬ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার, ২৯২ জন পোলিং অফিসার এবং অষ্টগ্রাম উপজেলার ৩৮টি ভোটকেন্দ্রে ৩৮ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ১৮৭ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ৩৫৪ জন পোলিং অফিসার নিয়োগ দেয়া হয়।

সার্বিক নিরাপত্তা বিবেচনায় ১১৮টি কেন্দ্রের মধ্যে ১০৪টি কেন্দ্রকেই ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়। এসব কেন্দ্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়। মোতায়েন করা হয় ৫ হাজার আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য।

২৪ এপ্রিল রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের শপথের পর আসনটি শূন্য হওয়ার প্রেক্ষাপটে গত ২২ মে  নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দিন আহমেদ। ২২ জুলাইয়ের মধ্যে ছিলো নির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা।

তফসিল ঘোষণার পর নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য তিন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিলেও গত ৯ জুন বাছাইয়ের সময় রিটার্নিং অফিসার জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম নেতা মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অষ্টগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক সৈয়দ মহিতুল ইসলাম অসীমের মনোনয়নপত্র বাতিল এবং একমাত্র প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগ প্রার্থী রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিকের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন। পরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবর সৈয়দ মহিতুল ইসলাম অসীম প্রার্থিতা বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল করলে গত ১৩ জুন তিনি তার প্রার্থিতা ফিরে পান।

নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং কর্মকর্তা ছিলেন ময়মনসিংহ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. জাহিদ। নির্বাচনের জন্য বুধবার তিন উপজেলায় সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়।