কিরণ মহাজন হত্যা;শিল্পি মহাজন ও অরুন মহাজনকে আদালতে সোর্পদ

প্রকাশ:| শুক্রবার, ৯ মে , ২০১৪ সময় ১০:৫০ অপরাহ্ণ

শফিউল আলম, রাউজান প্রতিনিধি ঃ রাউজানের ডাবুয়ার পশ্চিম ডাবুয়া বণিক পাড়ায় ছূরিকাঘাতে নিহত কিরণ মহাজনের স্ত্রী শেলী মহাজন কান্না জড়িত কন্ঠে সাংবাদিকদের বলেন আমার স্বামীর হত্যাকারীদের ফাসঁীঁ চাই খুনিদের ফাঁসী না হলে আমার দুই ছেলেকে ও হত্যা করবে খুনিরা । আমার স্বা মাটির বসতঘরের পার্শ্বে খুনি বিশু মহাজন ভাড়া টিয়া সন্ত্রাসী এনে গত ২০১২ সালে পাকা ভবণ নির্মান করার সময় গভীর ভাবে মাটি কেটে গর্ত করলে আমার স্বামীর মাটির বসত ঘরটি ধসে পড়ে । মাটির ঘরটি ধসে পড়ায় প্রতিবাদ করলে করলে আমার স্বামী সহ আমার দুই ছেলেকে মারধর করে খুনি বিশু মহাজন ও তার পরিবারের সদস্যরা । এই ঘটনার পর এলাকার স্থানীয় মেম্বার সহ প্রশাসনের দ্বারে বিচার পাওয়ার আশায় ঘুরেছি । কেউ আমাদের উপর নির্যাতনের বিচার করেনি । আদালতে মামলা করে ঐ মামলা তদন্তের জন্য উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার শহিদুল ইসলামকে দায়িত্ব দেয় আদালত সমাজ সেবা অফিসার শহিদুল ইসলাম মোটা অংকের টাকা নিয়ে মামলার তদন্ত রিপোর্ট দেয়নি । আমার স্বামী ও আমার ছেলেদের উপর নির্যাতন করার বিচার না হওয়ায় বিশু মহাজন তার পরিবারের সদস্যরা আমার স্বামী কিরণ মহাজনকে হত্যা করে আমার ছেলে ডাবুয়া তারা চরণ শ্যামাচরণ উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর চাত্র জয় মহাজনকে ছূরিকাঘাত করে আহত করেন বিশু মহাজন তার পরিবারের সদস্যরা স্বামী হারানো শেলী মহাজন এই কথা বলেন । রাউজানের আমির হাট এলাকায় খুনি বিশু মহাজনের একটি স্বর্নের দোকান রয়েছে । গতকাল শুক্রবার সকালে হলদিয়া আমির হাটে তার স্বর্ণের দোকানে গিয়ে দেখা যায় স্বর্ণেও দোকানটি তালা মারা । এলাকার লোকজন জানিয়েছেন কিরণ মহাজনের হত্যাকান্ডের ঘটনার দিন রাতে তার দোকানটির দরজায় তালা লাগিয়ে আসেন বিশু মহাজন । । ঘটনার পর পুলিশ দোকানের গ্রীলের দরজায় আরো একটি তালা লাগিয়ে দেয় । হলদিয়া আমির হাটে বিশু মহাজনের স্বণের দোকানে এলাকার সন্ত্রাসী বখাটে যুবকদের আস্তানা ছিল । কিরন মহাজনের হত্যা কান্ডের ঘটনার পুর্বে কয়েকদিন এলাকার সন্ত্রাসীদের নিয়ে বিশু মহাজন প্রতিনিয়ত আলাপ করতে দেখতো বলে এলাকার লোকজন জানান । ঘটনার পর রাউজান থানার পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত খুনি বিশু মহাজনের ভাই অরুন মহাজন, বিশু মহাজনের স্ত্রী শিল্পি মহাজনকে গ্রেফতার করেন ।
হত্যা তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই কায়সার হামিদ জানান কিরণ মহাজন হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত শিল্পি মহাজন ও অরুন মহাজনকে গতকাল আদালতে সোর্পদ করা হয়েছে । খুনি বিশু মহাজন সহ মামলার অনান্য আসামীদের গ্রেফতারের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে । রাউজান উপজেলার ডাবুয়া ইউনিয়নে পশ্চিম ডাবুয়ায় গত ৭ মে বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে এগারটার সময় জায়গা জমির বিরোধের জের ধরে বিশু মহাজন তার পরিবারের সদস্যরা কিরন মহাজনকে ছূরিকাঘাত করে হত্যা করে। কিরন মহাজনের পুত্র জয় মহাজনকে ছুরিকাঘাত করে আহত করেন । হত্যাকান্ডের ঘটনার ব্যাপারে গত বৃহস্পতিবার সকালে নিহত কিরণ মহাজনের স্ত্রী শেলী মহাজন বাদী হয়ে রাউজান থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যা মামলায় বিশু মহাজন, তার ভাই অরুন মহাজন, আশু মহাজন, শ্যালক পংকজ ধরকে আসামী করা হয় । আসামীদের মধ্যে বিশু মহাজনের ভাই অরুন মহাজন (৫০) বিশু মহাজনের স্ত্রী শিল্পী মহাজন ( ৩০) কে গ্রেফতার করে পুলিশ তাদের গতকাল আদালতে সোর্পদ করা হয় । খুনি বিশু মহাজন, আমু মহাজন, পংকজ ধরকে পুলিশ এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি । নিহত কিরণ মহাজনের লাশ ময়না তদন্তের পর গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে নিজ বাড়ীর পারিবারিক শ্বশানে দাহ করা হয় ।


আরোও সংবাদ