কিছু ঘটনা সামগ্রিক অর্জনকে ম্লান করে দিয়েছে: সিইসি

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৩১ মার্চ , ২০১৬ সময় ১০:০৬ অপরাহ্ণ

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

কয়েকটি ইউনিয়নে কিছু ঘটনা সামগ্রিক অর্জনকে ম্লান করে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন। দ্বিতীয় পর্যায়ের ইউপি নির্বাচনে ৩৩টি ভোট কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে বলে জানান সিইসি।

সিইসি বলেন, নির্বাচনে ব্যাপক ভোটারের উপস্থিতি ছিল। বিশেষ করে নারী ভোটারের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যণীয়। টেলিভিশন দেখে মনে হয়েছে, প্রথম ধাপের চেয়ে দ্বিতীয় ধাপে নির্বাচন ভালো হয়েছে।

তিনি বলেন, প্রথম ধাপে ম্যাজিস্ট্রেটরা অনিয়মকারীদের আর্থিক জরিমানা ও কারাদণ্ড দিয়েছেন। ১১ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। সাতক্ষীরার কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তাকে তলব করা হয়েছে। অনিয়মকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে তাদের বলা হয়েছে। সাতক্ষীরা জেলার পুলিশ সুপারকেও শুনানি করে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি সম্পর্কে বলা হয়েছে। এখন তারা কি ব্যবস্থা নেন, প্রতিটি ব্যবস্থাই নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে।

নির্বাচন কেমন হলো? এমন প্রশ্নের জবাবে কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ বলেন, আসলে নির্বাচন কেমন হলো, আপনারা সেটা ভালো দেখছেন, বুঝছেন। আপনাদের রিপোর্ট দেখেই বুঝছি, ভালো-খারাপ দু’টোই দেখেছি।

তিনি বলেন, কেরানীগঞ্জে ১টি শিশু ও ভোলায় সাংবাদিক গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এজন্য দুঃখ প্রকাশ করছি। এবং আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করে দোয়া করছি।

পুলিশের গুলিতে সাংবাদিক আহত হয়েছে, কমিশন কি ব্যবস্থা নেবে? এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ওটা আনফরচুনেট ঘটনা। আপনারা দেখেছেন প্রথম ধাপের নির্বাচনে একজন আনসার নিজের গুলিতে নিহত হয়েছেন। তাই আনফরচুনেট ঘটনা যাতে না ঘটে, সেজন্য অস্ত্র ব্যবহারের ক্ষেত্রে আরো সতর্ক হতে হবে।

রকিবউদ্দীন আহমদ বলেন, প্রথম ধাপের ওইসব গৃহীত ব্যবস্থার কারণে ভবিষ্যতে নির্বাচন আরো শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে। বেশিরভাগ জায়গায় শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ হলেও কয়েকটি ঘটনা সামগ্রিক অর্জনকে ম্লান করেছে।

২য় পর্যায়ের নির্বাচনেও যারা অনিয়মের সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দায়িত্ব পালনে যেকেউ অবহেলা বা অনিয়ম করলে সেক্ষেত্রেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যারা প্রশংসনীয় কাজ করছে তাদের ধন্যবাদ দিচ্ছি। বিশেষ করে শান্তিপূর্ণ ও সুশৃঙ্খলভাবে ভোট দেওয়ার জন্য ভোটারদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। একইসঙ্গে ভবিষ্যতেও একইভাবে স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, আমাদের সিদ্ধান্ত নিতে বিলম্ব হয় না। তবে খবর যাচাই করে নিতে হয়। অনেক সময় মৌখিক খবর আসে, যাচাই করে নেই। ইতিমধ্যে যেখানে গণ্ডগোল হয়েছে, সেখানে কেন্দ্র বন্ধ করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ৩৩টি কেন্দ্র বন্ধ করা হয়েছে।


আরোও সংবাদ