সালাহ উদ্দিনকে খুঁজে বের করতে বললেন সুরঞ্জিত

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১২ মার্চ , ২০১৫ সময় ১১:২২ অপরাহ্ণ

সালাহ উদ্দিনকে খুঁজে বের করতে বললেন সুরঞ্জিত

আওয়ামী লীগের উপদেষ্ঠা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত বলেছেন, ‘রাজনীতি করতে হলে গ্রেপ্তার হতে হবে। পুলিশের দমন-নিপীড়নের জন্য প্রস্তুত থাকতে হয়। এমনকি জীবনের ঝুঁকি নিতে হয়।’

শুক্রবার সকালে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে চলমান রাজনীতি শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী সেলিসসহ সংগঠনের নেতারা।

সুরঞ্জিত বলেন, ‘গ্রেপ্তরের ভয়ে লুকিয়ে থাকলে রাজনীতি হয় না। রাজনীতি করতে হলে জনগণের সামনে থেকে কথা বলতে হয়। আমরা রাজনীতি করছি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে। একবার নয় বারবার জীবনের ঝুঁকি নিয়েছি। এখনো গায়ে গ্রেনেডের স্প্লিন্টার নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছি।’

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে উদ্দেশ করে সুরঞ্জিত বলেন, ‘আত্মগোপনে ও নিখোঁজ থাকা বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদকে খুঁজে বের করুন। তারপর তাদের কাছে ফিরিয়ে দেন।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি নেতারা আত্মগোপনে থেকে রাজনীতি করবে, আর তাদের পাওয়া না গেলই সরকারকে দোষারূপ করবে এ হচ্ছে তাদের রাজনীতি।’

সুরঞ্জিত বলেন, ‘খালেদা জিয়া আজকে প্রেসের সামনে আসবে। আমি তাকে প্রেসের সামনে আসার আগে বলে রাখি- হরতাল-অবেরোধে যে ১৩২ জন মানুষ মারা গেছে, সাড়ে ছয়শত জন আগুনে দগ্ধ হয়েছে এবং হাজার খানেক গাড়ি পুড়ানো হয়েছে এর দায়দায়িত্ব আপনাকে নিতে হবে। আন্দোলনের ফলাফলও কি জানাতে হবে।’

খালেদা জিয়ার আন্দোলনের ফলাফল হলো ০+০+০+০+০+০ বলে মন্তব্য করে সাবেক এ মন্ত্রী বলেন, ‘শূন্যের সঙ্গে হাজারো শূন্য যোগ করলে যোগফল শূন্যই হয়। আর খালেদা জিয়ার আন্দোলনের ফলাফল শূন্য। তিনি হরতাল-অবরোধের রাজনীতি করে গণতান্ত্রিক আন্দোলনে কালিমা লেপন করছে।’

খালেদা জিয়াকে ধ্বংসাত্মক রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আশার অনুরোধ করে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, ‘সুস্থ রাজনীতিতে ফিরে আসার জন্য আপনার কাছে দু’টি সুযোগ এসেছে। একটি হলো আপনার ছেলের মৃত্যুর পর আপনি চাইলে হরতাল-অবরোধ বন্ধ করে ফিরে আসতে পারতেন। কিন্তু তা করেন নাই। এখন সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এ সুযোগে অন্ধকার রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসুন। না হলে আপনি ও আপনার দল অন্ধকারে ডুবে যাবে। গত ৪ বছরে অন্ধকারে থেকে আপনার আন্দোলনের কোনো সাফল্যই আসেনি। এবারও আসবে না।’

এদিকে রাজনীতিতে কোমলমতি শিশুদের ব্যবহার করা নিষেধ থাকলেও সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের এ আলোচনা সভায় শিশু-কিশোরসহ প্রায় অধিকাংশ ছিল অপ্রাপ্ত বয়স্ক।


আরোও সংবাদ