কালিকাপ্রসাদ আর নেই

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৭ মার্চ , ২০১৭ সময় ১১:৩৭ অপরাহ্ণ

একটানা হর্নটা বেজে যাচ্ছিল। মিনিট দশেক ধরে তা থামতে না দেখে গ্রামবাসীরা গিয়ে দেখেন, নয়ানজুলির ভিতর উল্টে পড়ে আছে একটা ইনোভা। দুর্ঘটনার কবলে পড়া আরোহীদের বেশির ভাগই অচৈতন্য। তখনও কেউ বুঝতে পারেনি, ওই দুর্ঘটনায় গানের দল ‘দোহার’-এর কালিকাপ্রসাদ মারা গিয়েছেন। গুরুতর জখম হয়েছেন তাঁর পাঁচ সতীর্থ।

মুহূর্তের মধ্যেই খবরটা সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়ে। কালিকাপ্রসাদ আর নেই! মঙ্গলবার সকালে দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়েতে ওই দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছেন তিনি। ‘দোহার’-এর বাকি সদস্য নীলাদ্রি রায়, অর্ণব রায়, সন্দীপন পাল, সুদীপ্ত চক্রবর্তী ও রাজীব দাস গুরুতর জখম হয়ে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি। তাঁদের শরীরের বিভিন্ন জায়গার হাড় ভাঙার পাশাপাশি মাথায় গুরুতর চোট লেগেছে। হাসপাতাল সূত্রে খবর, আহতদের মধ্যে তিন জনের অবস্থা সঙ্কটজনক। এ দিন সন্ধ্যা পর্যন্ত অবস্থার কোনও উন্নতি হয়নি।

দুর্ঘটনার পর এ ভাবেই উল্টে যায় কালিকাপ্রসাদের গাড়ি। —নিজস্ব চিত্র।

কালিকাপ্রসাদের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই সংস্কৃতি জগতে শোকের ছায়া নেমে আসে। শোকপ্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ দিন বিকেলে কালিকাপ্রসাদের দেহ নিয়ে আসা হয় তাঁর সন্তোষপুরের বাড়িতে। পথে নবান্নের সামনে তাঁকে শ্রদ্ধা জানান মুখ্যমন্ত্রী। বিকেল সাড়ে ৪টে নাগাদ তাঁর দেহ রবীন্দ্রসদনে নিয়ে আসা হয়। সাধারণ মানুষের শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের জন্য সন্ধ্যা পর্যন্ত কালিকাপ্রসাদের দেহ সেখানে রাখা হয়। এ দিন রাতেই তাঁর শেষকৃত্য কেওড়াতলা শ্মশানে।
পুলিশ জানিয়েছে, এ দিন সকাল ৮টা ৫০ নাগাদ হুগলির গুড়াপের কাছে টিম-দোহারের গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি নয়ানজুলির ভিতর উল্টে যায়। সকলকে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিত্সকেরা কালিকাপ্রসাদকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।
সোমবার সন্ধ্যায় রাজারহাট নিউটাউনে অনুষ্ঠান ছিল দোহারের। সেখানে গান গেয়েছিলেন কালিকাপ্রসাদ। এ দিন বীরভূমের সিউড়িতে তাঁদের অনুষ্ঠান ছিল। সকাল সাতটা নাগাদ কলকাতা থেকে বেরিয়েছিল টিম-দোহার। পুলিশের দাবি, পথে গুড়াপের কাছে রাস্তার ধারে পুঁতে রাখা লোহার বিমে দোহারের গাড়িটি গিয়ে ধাক্কা মারে। এর পর প্রায় ঘষটাতে ঘষটাতে গাড়িটি ৯০ ফুট মতো এগিয়ে যায়। এর পর রাস্তার ডান দিকে ডিভাইডারের মতো রাখা লোহার পাতে কোনও ভাবে গাড়ির সামনের ডান দিকের চাকার টায়ার ফেঁসে যায়। পরে সেই চাকা খুলে গাড়িটি নয়ানজুলির ভিতর উল্টে যায় বলে পুলিশের দাবি। এ দিন যে জায়গায় দুর্ঘটনা হয়েছে, সেখান থেকে মাত্র কুড়ি কিলোমিটার দূরে মাস কয়েক আগে দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। ভয়াবহ সেই দুর্ঘটনাতেও তাঁর গাড়ি উল্টে যায়। সে যাত্রায় প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন অভিষেক। এ ছাড়া দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়েতে প্রায় প্রতি দিনই ছোটবড় নানা দুর্ঘটনা লেগেই রয়েছে।

কালিকাপ্রসাদের মৃত্যুতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের টুইট।

অসমের শিলচরে কালিকাপ্রসাদের জন্ম ১৯৭০-এ। সেখানেই স্কুল-কলেজের পাঠ সেরে কলকাতার যাদবপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ে তুলনামূলক সাহিত্য নিয়ে পড়াশোনা। ১৯৯৯তে গানের দল দোহার গড়ে তোলেন। লোকগানই গাইতেন কালিকাপ্রসাদ। গায়কের আকস্মিক মৃত্যুর খবর বিশ্বাস করতে পারেনি তাঁর পরিবার এবং সংস্কৃতি জগত্। শোকপ্রকাশ করেছেন কবীর সুমন, শ্রাবণী সেন, উষা উত্থুপ, রূপঙ্কর, সুরজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের মতো শিল্পীরা।