কারাগারে পাঠানো শাসকগোষ্ঠীর ইচ্ছারই প্রতিফলন

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট , ২০১৬ সময় ১০:০২ অপরাহ্ণ

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে জামিনযোগ্য মামলায় জামিন না দিয়ে কারাগারে পাঠানো শাসকগোষ্ঠীর ইচ্ছারই প্রতিফলন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তিনি বলেছেন, রিজভী দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ এবং চিকিৎসকের পর্যবেক্ষনে আছেন। এই অবস্থায় তাকে জামিন না দিয়ে কারাগারে পাঠানোর ঘটনা অমানবিক আচরনের বহি:প্রকাশ।  বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু সাক্ষরিত এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন। খালেদা জিয়া বলেন, ভোটারবিহীন অবৈধ ও অনৈতিক সরকার ক্ষমতার মোহে অন্ধ হয়ে আজ মানবিকতাবোধও হারিয়ে ফেলেছে। তারা বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের নির্মূল ও পর্যদুস্ত করতে রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে মিথ্যা মামলা দিয়ে সারাদেশকে কারাগারে পরিণত করেছে। দলীয়করণের মাধ্যমে রাষ্ট্রের সকল স্তম্ভকে তারা ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে। বিচার বিভাগও আজ স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছে না। তিনি বলেন, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী একজন আইনজীবি ও আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল একজন ব্যক্তি বলেই আদালতে জামিন প্রার্থনা করেছিলেন। আদালতে রিজভীর জামিন নামঞ্জুরের ঘটনায় ন্যায়বিচার প্রতিফলিত হয়নি বলে মনে করি। মামলার এজাহারে রুহুল কবির রিজভীর নাম না থাকলেও সম্পূর্ণ রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় পুলিশ তার নাম মামলায় অন্তর্ভুক্ত করেছে। অবিলম্বে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা প্রত্যাহার করে অবিলম্বে মুক্তি দাবি করেছেন খালেদা জিয়া। অপর এক বিবৃতিতে আদালত বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে আদালতে জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, রিজভী দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ হয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন। কিছুদিন আগেও রাজধানীর একটি হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে আছেন তিনি। মিথ্যা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় এ অবস্থায় তাকে জামিন না দিয়ে কারাগারে প্রেরণের ঘটনা প্রমান করে সরকার মানবিকতাবোধ হারিয়ে ফেলেছে। সম্পূর্ণ রাজনৈতিক প্রতিহিংসাবশত: তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তিনি ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছেন বলে আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি। রিজভীর বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার, সুচিকিৎসা ও অবিলম্বে মুক্তি দেয়ারও জোর দাবি করেন। এদিকে আলাদা আলাদা বিবৃতিতে জামিন নামঞ্জুর করে রিজভী আহমেদকে কারাগারে পাঠানোর প্রতিবাদ জানিয়েছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও মহিলা দল কেন্দ্রীয় সংসদ।


আরোও সংবাদ