কাপ্তাইয়ে কম ভোটারের উপস্থিতিতে শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন সম্পন্ন

প্রকাশ:| রবিবার, ৫ জানুয়ারি , ২০১৪ সময় ০৯:৫৮ অপরাহ্ণ

কাপ্তাই প্রতিনিধি,
কমসংখ্যক ভোটারের উপস্থিতিতে কাপ্তাইয়ের ১৮টি ভোট কেন্দ্রে অত্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। ২৯৯নং রাঙামাটি আসনের কাপ্তাই উপজেলার ১৮টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৮টি ঝুঁকিপূর্ণ ও ৩টি কেন্দ্রকে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ ভোট কেন্দ্রগুলোতে যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রশাসন ছিল তৎপর। সে অনুযায়ী উপজেলার কোন কেন্দ্রে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের সমর্থকদের সাথে কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। কোন কোন কেন্দ্রে আওয়ামীলীগ প্রার্থী (নৌকা প্রতীক) দীপংকর তালুকদারের সমর্থক এবং প্রতিদ্বন্দ্বী জেএসএস সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী (হাতি প্রতীক) উষাতন তালুকদারের সমর্থকরা পাশাপাশি থেকে নিজ নিজ ভোটারদের কেন্দ্রে নিয়ে যেতে দেখা যায়। তবে উষাতন তালুকদারের উপজেলার প্রধান নির্বাচন সমন্বয়কারী বিক্রম মারমা চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নের ৪টি কেন্দ্রে অধিক হারে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগ করেন। কিন্তু ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম এ ধরনের অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবী করেন। এ দিকে উপজেলার বাঙ্গালী অধিকৃত ভোট কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি একবারেই কম ছিল। অপর দিকে উপজাতি অধিকৃত ভোট কেন্দ্রগুলোতে ভোটারের উপস্থিতি ছিল মোটামুটি ভাবে লক্ষনীয়। উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ৪০,০৭০ জন। ১৮টি কেন্দ্রে দীপংকর তালুকদার নৌকা প্রতীক নিয়ে ১৩ হাজার ৫ ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী উষাতন তালুকদার হাতি প্রতীক পেয়েছে ৫ হাজার ৯৬৬ ভোট।

কাপ্তাইয়ে দিনভর মোবাইল নের্টওয়ার্ক বন্ধ ছিল
যে কোন ধরনের নাশকতা এড়াতে তিন পার্বত্য জেলার মতো কাপ্তাইয়ে গতকাল রোববার সারাদিন মোবাইল নের্টওয়ার্ক বন্ধ ছিল। ওই দিন ভোর ৬টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত দেশের সব অপারেটরের নের্টওয়ার্ক অত্র অঞ্চলে বন্ধ থাকে। এতে জনসাধারণ সহ ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সংবাদ কর্মীরা মারাত্মক ভোগান্তির শিকার হয়। সংবাদকর্মীরা পার্বত্যাঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে পর্যবেক্ষনের দায়িত্বে নিয়োজিত থাকলেও তাদের সাথে সারাদেশের যোগাযোগ বিছিন্ন ছিল। এ ব্যাপারে সহকারী রির্টানিং অফিসার ও উপজেলা ইউএনও এসএম নজরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী মোবাইল নের্টওয়ার্ক বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে ওই দিন বিকাল ৫টার পর মোবাইল নের্টওয়ার্ক পুনরায় চালু হয়।