কাগজপত্র হালনাগাদ থাকলে যানবাহনে স্টিকার

প্রকাশ:| রবিবার, ১৩ মার্চ , ২০১৬ সময় ১১:১৫ অপরাহ্ণ

কাগজপত্র হালনাগাদ আছে এমন যানবাহনে শিগগিরই স্টিকার সরবরাহ করা হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
রোববার সচিবালয়ে সভা শেষে তিনি বলেন, যানবাহনে স্টিকার দিতে ইতিপূর্বে নেওয়া সিদ্ধান্ত যথাযথভাবে বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।কাগজপত্র হালনাগাদ থাকলেই যানবাহনে স্টিকার দেওয়া হবে।
পর্যায়ক্রমে সব যানবাহনেই স্টিকার সরবরাহ করা হবে বলে জানান বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম জানান।
নৌ পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, ওই স্টিকার গাড়িতে থাকলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ওই গাড়ির কাজগপত্র যাচাই করবে না কিংবা করলেও বেশি সময় নেবে না।
কাগজপত্র হালনাগাদ থাকলে যানবাহনে স্টিকারওবায়দুল কাদের বলেন, সারা দেশে হাইওয়ের আশেপাশে যে ঘাটে ঘাটে পরিবহনকে টোল দিতে হচ্ছে। টোলের নামে এটা চাঁদাবাজি। এ চাঁদাবাজি যে কোন মূল্যে বন্ধ করতে হবে। এ ব্যাপারে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আশ্বস্ত করেছেন, যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হবে। কোন কোন স্থান থেকে টোল আদায় করা হচ্ছে সেই তালিকা স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় পুলিশের কাছে দেবে। এরপর পুলিশ এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।
চাঁদাবাজিতে বহুমাত্রিকতা এসেছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ঘাটে ঘাটে বহুমাত্রিক চাঁদাবাজি বন্ধ করতে হবে। সেজন্য আমরা কঠিন সিদ্ধান্ত নিচ্ছি, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ‘এনফোর্সমেন্টে’ যাচ্ছে।
ট্রাক, কাভার্ড ভ্যানের চেসিসের আয়তন অবৈধভাবে বৃদ্ধি, সর্বোচ্চ দৈর্ঘ্য নির্ধারণ, সড়কের ক্ষতি নিরূপণ ও বিদ্যমান আইন যথাযথ বাস্তবায়নে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে জানান তিনি।
পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গার নেতৃত্বে এই কমিটিতে সদস্য হিসেবে থাকবেন বুয়েটের দুই প্রতিনিধি, ডিএমপি (ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ), সড়ক ও জনপথ বিভাগ, বিআরটিএ, মালিক সমিতি ও শ্রমিক ফেডারেশনের একজন করে প্রতিনিধি।
সড়কমন্ত্রী বলেন, কমিটি ৩০ এপ্রিলের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবে।
সড়ক পরিবহন খাতের বিদ্যমান সমস্যা নিয়ে ওই সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা, ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়াসহ এবং পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতারা উপস্থিত ছিলেন।


আরোও সংবাদ