কাউখালী থানা ভবন ও ব্যারাক পুড়ে যাওয়ার ঘটনায় তদন্ত কমিটি

প্রকাশ:| বুধবার, ৬ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ১১:২৮ অপরাহ্ণ

কাউখালী থানা ভবন ও ব্যারাক পুড়েরাঙ্গামাটির কাউখালী থানা ভবন ও ব্যারাক পুড়ে যাওয়ার ঘটনায় রাঙ্গামাটি জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জমানকে আহবায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী তিন দিনের মধ্যে অগ্নিকান্ডের প্রকৃত কারণ অনুসন্ধ্যান করে রির্পোট দিতে বলা হযেছে। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভয়াবহ আগুন লেগে টিন শেডের পাচঁটি ব্যারাক,সেমিপাকা অস্ত্রাগার, মজুদখানা, হাজতখানাসহ ছয়টি ছোট বড় টিনশেড ঘর,আসবাবপত্র সম্পূন্ন পুড়ে গেছে। প্রাথমিকভাবে বৈদ্যুতিক শট সার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত বলে পুলিশ জানিয়েছে। প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ সদস্যদের সমবেদনা জানিয়ে নগদ অর্থসহায়তা সহ বিভিন্ন ত্রান সামগ্রী বিতরন করেছে।
অগ্নিকান্ডে তিগ্রস্থ অস্ত্রাগার ও ব্যারাক থেকে ১০টি চায়না রাইফেল,১টি গ্যাস গান,১টি শর্ট গান,১৮০ রাউন্ড রাইফেলের গুলি, ১০টি শর্টগানের গুলি, ১০টি গ্যাস গানের গুলি ও ১টি ম্যাগজিনসহ পুলিশের পরিধেয় বিপুল পরিমান পোশাক। এছাড়া এ অগ্নিকান্ডে নগদ টাকাসহ প্রায় কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে কাউখালী থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল কান্তি বড়ুয়া জানিয়েছেন। বুধবার সকালে চট্টগ্রাম রেজ্ঞের অতিরিক্ত ডিআইজি(প্রশাসন) মোঃ মোশারফ করিম, রাঙ্গামাটির রিজিয়ন কমান্ডার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোঃ সারোয়ার হোসেন,এইচডিএমসি পিএসসি, রাঙ্গামাটি জোন কমান্ডার লে.কর্নেল ইফতেখার মাহমুদ, রাঙ্গামাটির পুলিশ সুপার আমেনা বেগম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। কাউখালী থানায় অগ্নিকান্ডের ঘটনায় রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মোস্তফা কামাল প্রতি পুলিশ সদস্যকে নগদ তিন হাজার টাকা,পুলিশ সুপার আমেনা বেগম এক হাজার টাকা করে নগদ সহায়তা দেয়া হয়। এছাড়া কাউখালী উপজেলা বিএনপির পক্ষ থেকে দশ হাজার টাকা, থানা ভবন মেরামতের জন্য রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্য্যালয় থেকে পনের বান্ডিল ঢেউ টিন,নগদ আরো পয়তাল্লিশ হাজার টাকা,কাউখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে চল্লিশটি গাছের খুটি দেয়া হয়।
দুপুরে অগ্ন্কিান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ কাউখালী থানায় গিয়ে দেখা যায় পুলিশ সদস্যরা আগুনে পুড়ে যাওয়া তাদের ট্রাংক নিয়ে বিমর্ষ অবস্থায় দেখছে যে কিছু ভাল পাওয়া যায় কিনা। পুলিশের থাকার ব্যারাক পুড়ে যাওয়ায় সাময়িকভাবে পুলিশ সদস্যদের কাউখালী আইডিয়াল কেজি স্কুল,এবং থানা এলাকায় তাবুর ব্যবস্থা করা হয়েছে।