কলড্রপের শীর্ষে জিপি, সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১০০ কোটি

mirza imtiaz প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর , ২০১৮ সময় ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ

 

ঢাকা: দেশে গত এক বছরে কলড্রপের সংখ্যা ২ শ ২২ কোটি ১৫ লাখ । কলড্রপের দিক থেকে শীর্ষে রয়েছে গ্রামীণফোন। শীর্ষ স্থানীয় এই অপারেটরটির কলড্রপের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০৩ কোটি ৪৩ লাখ।

কথা বলতে গিয়ে মাঝপথে লাইন কেটে যাওয়ার ক্ষেত্রে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রবি আজিয়াটা লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটির কলড্রপের সংখ্যা ৭৬ কোটি ১৮ লাখ। এছাড়াও, বাংলালিংকে এক বছরে কলড্রপ হয়েছে ৩৬ কোটি ৫৪ লাখ বার এবং টেলিটকে ৬ কোটি বার।

সোমবার (২২ অক্টোবর) বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে। প্রতিবেদনটিতে ২০১৭ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে চলতি বছরের ১৮ সেপ্টেম্বরের তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, গত এক বছরে এক বারের অধিক কলড্রপের সংখ্যা ৬৯ কোটি ৩৮ লাখ। এ ক্ষেত্রেও শীর্ষে গ্রামীণফোন। এক বারের বেশি গ্রামীণফোনের কলড্রপের সংখ্যা ২৭ কোটি ৭৭ লাখ। এ ছাড়া রবির ২৪ কোটি ৪৭ লাখ ও বাংলালিংকের ১৭ কোটি ১৪ লাখ।

তবে, সরকারি অপারেটর টেলিটকের ক্ষেত্রে দিনে একবারের বেশি কলড্রপ হয়নি। কলড্রপের ক্ষেত্রে গত এক বছরে বিভিন্ন অপারেটর গ্রাহককে ফেরত দিয়েছে মাত্র ২২ কোটি ৬ লাখ মিনিট। অথচ নিয়ম অনুযায়ী, ৬৯ কোটি ৩৮ কোটি লাখ মিনিটই ফেরত দেয়ার কথা ছিল।

বিটিআরসির নিয়মে বলা হয়েছে, দৈনিক একের অধিক প্রতিটি কলড্রপের জন্য ১ মিনিট টকটাইম গ্রাহককে ফেরত দিতে হবে এবং তা এসএমএসের মাধ্যমে তাকে জানাতে হবে। বিটিআরসির তথ্যমতে, গ্রামীণফোন এক বছরে ফেরত দিয়েছে ১০ কোটি ৩০ লাখ মিনিট, রবি ৬ কোটি ৮২ লাখ এবং বাংলালিংক ৪ কোটি ৯৪ লাখ মিনিট।

এদিকে, সোমবার বিকেলে পাঠানো এক চিঠিতে আগামী পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে নিজেদের নেটওয়ার্কে কলড্রপের প্রকৃত অবস্থা জানাতে মুঠোফোন অপারেটরগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে বিটিআরসি। পরিচালক গোলাম রাজ্জাকের সই করা ওই চিঠিতে অপারেটরদের উদ্দেশ্যে বলা হয়েছে, ‘আপনার নেটওয়ার্কে সামগ্রিক প্রকৃত কলড্রপের অবস্থা এবং এ সংক্রান্ত অভিযোগের বিষয়ে আপনাদের ব্যাখ্যা আগামী পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে বিটিআরসিতে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হল।’