কর্মরতাদের সাংবাদিকদের নিরাপত্তা দাবি

প্রকাশ:| বুধবার, ৩০ অক্টোবর , ২০১৩ সময় ০৮:২০ অপরাহ্ণ

বোমা হামলার ‘উসকানিদাতা’ হিসেবে কবি ও প্রবন্ধিক ফরহাদ মজহারের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি শহীদ উল আলম ও সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ হায়দার চৌধুরীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে গণমাধ্যমে বোমা হামলার ‘উসকানিদাতা’ কলামিস্ট ফরহাদ মজহারের গ্রেপ্তার ও সাংবাদিকদের নিরাপত্তা প্রদানের দাবি জানালে তথ্যমন্ত্রী একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘ফরহাদ মজহারের বক্তব্য গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমের জন্য হুমকি। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। গণমাধ্যম গণতন্ত্রের মিত্র। তাই গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে হলে গণমাধ্যমকে রক্ষা করতে হবে।’

নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউট (টিআইসি) মিলনায়তনে গণসংলাপ শেষে টিআইসি চত্বরেই সিইউজের প্রতিনিধি দলটি তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তারা টিভি টকশোতে গণমাধ্যমে বোমা হামলার জন্য কলামিস্ট ফরহাদ মজহারের উসকানিমূলক বক্তব্য প্রদানের বিষয়টি তুলে ধরে এরজন্য দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

সাংবাদিক নেতারা চট্টগ্রামের সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠান ও গণমাধ্যমে কর্মরতাদের সাংবাদিকদের অভিভাবক হিসেবেই তথ্যমন্ত্রীর কাছে নিরাপত্তা দাবি করেন।

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) যুগ্ম-মহাসচিব আসিফ সিরাজ, নির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ ফারুক, সিইউজে নির্বাহী কমিটির সদস্য ও প্রাক্তন সভাপতি এম নাসিরুল হক, নির্বাহী কমিটির সদস্য স্বরুপ ভট্টাচার্য, প্রাক্তন সহ-সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক পংকজ দস্তিদার, মাখন লাল সরকার, চট্টগ্রাম টিভি জার্নালিস্ট ফোরাম সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত ২৮ অক্টোবর একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে (একুশে টিভি) টকশোতে হরতালে ঢাকায় বিভিন্ন গণমাধ্যম অফিসে ককটেল বিস্ফোরণ ও সাংবাদিকদের লক্ষ্য করে হামলা প্রসঙ্গে ফরহাদ মজহার বলেন, গণমাধ্যম তো গণতন্ত্রের কথা বললেও গণতন্ত্র চর্চা করছে না। আমার দেশ, দিগন্ত, ইসলামিক টেলিভিশন ও চ্যানেল ওয়ান বন্ধের প্রতিবাদ করছে না। এ ধরনের গণমাধ্যমে বোমা হামলা হওয়াই উচিৎ।

পরে তিনি আত্মপক্ষ সমর্থন করে বলেন, তিনিও গণমাধ্যমের মানুষ। তাই গণমাধ্যমে কোনো ধরনের হামলা তিনি সমর্থন করেন না। তবে তিনি মতপ্রকাশের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। আর গণমাধ্যমের কাছে মানুষ ন্যায়পরায়ণতাই আশা করে। তার কথা যে ভুল বোঝা নয় হয় সে কথাও বলেন তিনি।


আরোও সংবাদ