কর্মচারীদের থাকার ঘর ভাড়ায় দেয় হাবিব

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৪ মে , ২০১৮ সময় ১০:১৬ অপরাহ্ণ

রাউজানে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মচারীদের থাকার ঘর হোটেল ও চায়ের দোকান করে হাবিব নামের এক শ্রমিক
শফিউল আলম, রাউজান ঃ চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার জলিল নগর বাস ষ্টেশনের পুর্বে সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ সহকারীর কার্যলয় । এই কার্যলয়ের পাশের্^ একটি বিশাল পুকুর, পুকুরের পাড়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মচারীদের পরিবার পরিজন নিয়ে থাকার জন্য রয়েছে সেমি পাকা ঘর । সড়ক ও জনপথ বিভাগের শ্রমিক মোঃ হাবিব কর্মচারীদের থাকার একটি ঘর দখল করে গত দশ বৎসর ধরে হোটেল ও চায়ের দোকান করে আসছে । সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মচারী হাবিব এই দোকান ঘর ছাড়া ও সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মচারীদের থাকার ঘর বহিরাগত লোকদের ভাড়া দিয়ে ঘর ভাড়ার টাকা হাবিব নিয়ে নিচ্ছে গত ২০ বৎসর ধরে । একই ভাবে সড়ক ও জনপথ বিভাগের ট্রাক চালক নুরুল আলম,শ্রমিক নুরুল ইসলাম কর্মচারীদের থাকার ঘর বহিরাগত লোকজনদের ভাড়ায় দিয়ে ঘর ভাড়ার টাকা তারা আদায় করে আসছে বলে জানা গেছে । সড়ক ও জনপথ বিভাগের অফিসের পাশের্^ বিশাল পুকুরের মাছ শিকার করে শ্রমিক হাবিব, নুরুল ইসলাম, নুরুল আলম মাছ বিক্রয় করে মাছ বিক্রয়ের টাকা হাতিয়ে নেয় । সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মচারীদের থাকার জন্য নির্মান ঘরে কোন শ্রমিকেরা ও তাদের পরিবারের সদস্যরা বসবাস না করে ঘর বহিরাগত লোকজনদের ভাড়া দেওয়ায় বহিরাগত লোকজন তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করায় সড়ক ও জনপথ বিভাগের বহু মালামাল ও অফিস থেকে লোপাট হয়ে যাওয়ার অভিযোগ রয়েছে ।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের শ্রমিক মোঃ হাবিব একজন শ্রমিক হয়ে ঘর ভাড়ার টাকা ও কর্মচারীদের থাকার ঘরে হোটেল ও চায়ের দোকানের ব্যবসা করে এখন বিপুল পরিমান অর্থ বিত্তের মালিক । শ্রমিক মোঃ হাবিব এই রমজান মাসের মধ্যে তার হোটেল ও চায়ের দোকান খোলা রেখে প্রকাশ্যে দোকানে ভাত ও চা বিক্রয় করছেন । সড়ক ও জনপথ বিভাগের শ্রমিক মোঃ হাবিব বলেন, আমি সড়ক ও জনপথ বিভাগের শ্রমিক কর্মচারীদের থাকার ঘরে আমি হোটেল ও চায়ের দোকান গড়ে তোলছি । দোকানের কোন ভাড়া সড়ক ও জনপথ বিভাগকে প্রদান করিনা । কর্মচারীদের থাকার ঘর আমি ও শ্রমিক নুরুল ইসলাম, ট্রাক চালক নুরুল আলম বাইরের লোকদের ভাড়ায় দিয়ে ভাড়ার টাকা আমরা নিজেরাই নিয়ে থাকি । এব্যাপারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের রাউজান উপ সহকারী অফিসের কার্যলয়ের সিনিয়র অফিসার কমল চাকমার কাছে জানতে চাইলে কমল চাকমা বলেন, সড়ক ও জনপথ বিভাগের রাউজানের কর্মচারীদের থাকার ঘর ভাড়া ও চায়ের দোকান করে ২০ বৎসর ধরে শ্রমিক হাবিব. নুরুল ইসলাম, ট্রাক চালক নুরুল আলম ভাড়ার টাকা তাদের পকেটে নিয়ে নেয় । ভাড়ার কোন টাকা সড়ক ও জনপথ বিভাগকে দেয়না ।
ছবির ক্যাপশনঃ রাউজানের সুলতানপুর কাজী পাড়ায় সালাউদ্দিনের মিশ্র ফলের বাগানে আম গাছে তোকা তোকা আম আম গাছের পরিচর্যা করছেন ফলের বাগানের মালিক সালাউদ্দিন