কম সময়ের উন্নতির পথে দ্রুত আরোহন করেছে দেশ

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৩ মার্চ , ২০১৮ সময় ০৬:৫২ অপরাহ্ণ

পৃথিবীতে যে কয়টি দেশ কম সময়ের মধ্যে শূন্য থেকে উন্নতির পথে দ্রুত আরোহন করেছে, তাদের মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। স্বাধীনতা অর্জনের পর সার্বভৌমত্ব ও স্বকীয়তা বজায় রেখে এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে উন্নতির হাতিয়ার করে বাংলাদেশ যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে সেটি রোলমডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (২৩ মার্চ) সকালে বাংলাদেশ এলিমেন্টারি স্কুলে দৃষ্টি চট্টগ্রামের আয়োজনে ও রোটারি ক্লাব অব চিটাগং সাগরিকার পৃষ্ঠপোষকতায় ‘রোটারি সাগরিকা-দৃষ্টি আন্তঃক্লাব যুক্তিতর্ক’ উদ্বোধনকালে বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মহাব্যবস্থাপক ও বিশিষ্ট নাট্যজন মনোজ সেনগুপ্ত কথাগুলো বলেন।

দৃষ্টি চট্টগ্রামের সভাপতি মাসুদ বকুলের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন শিক্ষাবিদ ও সানশাইন গ্রামার স্কুলের অধ্যক্ষ সাফিয়া গাজী রহমান, ওয়ান ব্যাংক লিমিটেডের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ম্যানেজার রাশেদুল আমিন রাশেদ, রোটারি ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল জেলা ৩২৮২ এর ডেপুটি গভর্নর জিন্নাহ চৌধুরী, বাংলাদেশ এলিমেন্টারি স্কুলের প্রধান শিক্ষক সামিনা হুদা।

বক্তব্য দেন দৃষ্টির যুগ্ম সম্পাদক সাইফুদ্দীন মুন্না, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী আরফাত, প্রতিযোগিতার প্রধান বিচারক কথাবন্ধু আফসানা তমা ও প্রতিযোগিতার সমন্বয়কারী মাহফুজুল ইসলাম।

মনোজ সেনগুপ্ত বলেন, বঙ্গবন্ধু যে সংস্কৃতিমনা ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন, সেটির বাস্তবায়ন করতে হলে এগিয়ে আসতে হবে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে। তাদের অন্তরে ধারণ করতে হবে বাংলাদেশের স্বাধীনতার চেতনা, সম্পৃক্ত হতে হবে সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে, গ্রহণ করতে হবে সব ভালো দিকগুলো আর গড়ে তুলতে হবে মানবিকতা, আদর্শ, ন্যায়পরায়ণতা, দেশপ্রেম ও দৃঢ়চেতা মনোভাব।

সাফিয়া গাজী রহমান বলেন, দিন পাল্টেছে, জগৎ পাল্টেছে, পাল্টেছে মানুষের রুচি। তোমাদের স্বপ্নের চূড়া যতটুকু, ততটুকুতে তোমরা অবশ্যই উঠতে চেষ্টা করবে। যেখানে থাকবে না ভয়ের বিন্দুমাত্র লেশ, বাধার ব্যবধান। তোমরা তোমাদের স্বপ্নের মতোই বড় হও, বেগবান হও, উদ্যমী হও।

রাশেদুল আমিন রাশেদ যুক্তির জয়গান ও প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে বলেন, বর্তমান সময়ে উঠতি বয়সের মানুষদের মাঝে কুসংসর্গ ও ভুল পথে চালিত হওয়ার প্রবণতা খুব দেখা যাচ্ছে। এখন এ অবস্থা থেকে উত্তরণের একমাত্র উপায় হলো যুক্তিবাদী মনোভাব ও সুশিক্ষা গ্রহণ।

মাসুদ বকুল বিতর্ক ও বাংলাদেশ নিয়ে তার স্বপ্নের কথা বলেন। তিনি বলেন, দৃষ্টি সবসময় কাজ করছে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে নিয়ে।
আমাদের এ প্রজন্ম সঠিক নির্দেশনা পেলে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছে যাবে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে হাসান জাদিদ মাশরুখের নির্দেশনায় স্বাধীনতা নিয়ে আবৃত্তি পরিবেশন করে দৃষ্টির সদস্যরা। মহান স্বাধীনতা দিবস ঘিরে অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতায় আগামীর বিশ্ব ও বাংলাদেশ, প্রযুক্তিগত উৎকর্ষ, কোটা সংস্কার, মোটিভেশনাল স্পিকিং, সাইবার হামলা, বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হওয়া ও সমসাময়িক বিষয়গুলো নিয়ে তুমুল তর্ক-বিতর্ক হয়।

তিন দিনব্যাপী প্রতিযোগিতার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন রোটারি ক্লাব অব চিটাগং সাগরিকার সভাপতি মোহাম্মদ ইসমাইল। সমাপনী অনুষ্ঠানে অতিথি থাকবেন রোটারি ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল জেলা ৩২৮২ এর গভর্নর ড. আবু তৈয়ব চৌধুরী, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক তপন চক্রবর্তী।

প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রামের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ২৪টি ক্লাব দল ও ১৬টি স্কুলের ১০০ শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে।


আরোও সংবাদ