কমিটির ব্যর্থতায় বার ও বেঞ্চের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছে

প্রকাশ:| বুধবার, ৮ ফেব্রুয়ারি , ২০১৭ সময় ১০:৪৮ অপরাহ্ণ

সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের প্যানেল পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত

মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবাহী সংগঠন সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ বিজ্ঞ আইনজীবীদের সার্বিক কল্যাণ ও মর্যাদা সংরক্ষণ, ঘুষ, দূর্নীতিমুক্ত বিচারাঙ্গন প্রতিষ্ঠা, বার ও বেঞ্চের মধ্যে পারষ্পরিক সম্মানজনক সুসম্পর্ক প্রতিষ্ঠা, সর্বোপরী ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড ও অনুদান সংগ্রহের মাধ্যমে আইনজীবী সমিতির তহবিল গঠন ও সম্পদ বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলছে এবং পরিষদের দক্ষ ও সুযোগ্য নেতৃত্ব আগামীতেও কার্যকর ভূমিকা রাখতে বদ্ধপরিকর। তাই ১২ ফেব্র“য়ারী অনুষ্ঠিতব্য চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে রতন-হানিফ-ইয়াছিন পরিষদকে পূর্ণ প্যানেলে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করুন।
৮ ফেব্রুয়ারী বেলা ২টায় আইনজীবী অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত প্যানেল পরিচিতি সভা জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এডভোকেট মোহাম্মদ মুজিবুল হকের সভাপতিত্বে এবং সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট প্রতীক কুমার দেব এর সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য এডভোকেট ইব্রাহীম চৌধুরী বাবুল, সাবেক সভাপতি এডভোকেট এ. এম. আনোয়ারুল কবির, এডভোকেট মাহবুব উদ্দিন, এডভোকেট খোরশেদ আলম চৌধুরী, এডভোকেট আ. ক. ম. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সুভাষ চন্দ্র লালা, এডভোকেট আবু মোহাম্মদ হাসেম, এডভোকেট মনতোষ বড়–য়া, এডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, এডভোকেট অশোক কুমার দাশ, এডভোকেট আবদুর রশিদ ও আরো বক্তব্য রাখেন, এডভোকেট জসিম উদ্দিন আহমদ খান, এডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী ও সিনিয়র সহ-সভাপতি এডভোকেট মুজিবুর রহমান চৌধুরী, সাংস্কৃতিক সম্পাদক এডভোকেট দুলাল চন্দ্র দেবনাথ প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটির অযোগ্যতা ও ব্যর্থতায় বার ও বেঞ্চের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টির একমাত্র কারণ। চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির উন্নয়নের রূপকার সমন্বয় পরিষদের নেতৃবৃন্দ। সভাপতি পদপ্রার্থী এডভোকেট রতন কুমার রায় বলেন, দলীয়ভাবে মনোনীত হলেও দল-মত-জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল বিজ্ঞ আইনজীবীর স্বার্থ রক্ষণ, বার ও বেঞ্চের মর্যাদাপূর্ণ সম্পর্ক উন্নয়ন ও অব্যাহত রাখা এবং সর্বোপরী সমিতির সার্বিক কল্যাণে সার্বক্ষণিকভাবে নিয়েজিত রাখব। সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী আবু হানিফ বলেন, নির্বাচিত হলে সমিতির মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখব এবং সমিতির উন্নয়নে সিনিয়র আইনজীবীদের সাথে পরামর্শক্রমে বিভিন্ন উন্নয়নমুখী প্রকল্প গ্রহণ করব।