কমিউনিটি সেন্টারে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষ, বাল্য বিয়ে বন্ধ

প্রকাশ:| শুক্রবার, ৫ আগস্ট , ২০১৬ সময় ১১:১৮ অপরাহ্ণ

খালেদ হোসেন টাপু,রামু
বাল্য বিয়ে বন্ধরামু উপজেলায় প্রেমিকার অভিযোগে কমিউনিটি সেন্টারে বাল্য বিবাহে বাধা দেওয়ায় পুলিশ ও বরপক্ষের লোকজনের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার বিকাল ৪টার দিকে উপজেলার জোয়ারিয়ানালা ম্যারেজ পার্ক কমিউনিটি সেন্টারে এ ঘটনা সংঘটিত হয়। সংঘর্ষ চলাকালে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করলে বর আবুল কালাম (২৬)সহ বরপক্ষের লোকজন পালিয়ে যায়।
বাল্য বিয়ে পন্ড করে কনে পক্ষকে অর্থদন্ড দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় ২ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।
জানা গেছে, কক্সবাজার সদর উপজেলার ইসলামবাদ ইউনিয়নের দক্ষিণ টেকপাড়া এলাকার আব্দুল মোতালেবের ছেলে আবুল কালাম আজাদের সাথে দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীর সাথে বিয়ে হচ্ছিল। বিয়ে চলাকালে আবুল কালামের প্রেমিকা রামু উপজেলার রশিদ নগর ইউনিয়নের পানিরছড়া হরিতলা এলাকার মোস্তাক আহাম্মদের মেয়ে কুলসুমা আকতারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে রামু থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আহসান হাবীব পুলিশ ফোর্সসহ কমিউনিটি সেন্টারে অভিযান চালায়।
এসময় বরপক্ষের লোকজন উত্তেজিত হয়ে পুলিশের উপর ইট পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ ফাকা গুলি বর্ষণ করে। ঘন্টাব্যাপী পুলিশ-জনতা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বেগম সেলিমা কাজী ও রামু থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রভাষ চন্দ্র ধর অতিরিক্ত ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
প্রেমিকা কুলসুমা আকতার অভিযোগ করেন, আবুল কালামের সাথে তার দীর্ঘ তিন বছর ধরে প্রেম ভালবাসার সম্পর্ক চলে আসছিল। গত এক মাস আগে হঠাৎ তার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় কালাম। পরে কালাম প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে অপ্রাপ্ত বয়স্ক কিশোরীকে বিয়ে করার খবর পেয়ে থানায় অভিযোগ করেন তিনি।
রামু থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রভাষ চন্দ্র ধর জানান, কুলসুমা আকতারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ বিষয়টি তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে গেলে বরপক্ষের লোকজন বিনা অজুহাতে পুলিশের উপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।
রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার বেগম সেলিমা কাজী জানান, বাল্য বিবাহ দন্ডনীয় অপরাধ। বাল্য বিয়ের অপরাধে কনে পক্ষকে অর্থদন্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়া শুনেছি কালাম নামে ওই ব্যক্তির সাথে কুলসুমা আকতারের দীর্ঘদিনের সম্পর্ক ছিল।